চৌগাছায় মহেশপুরের রাতুল হত্যা মামলায় ভগ্নিপতির স্বীকারোক্তি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার বাজিপোতা গ্রামের এহতেশাম মাহমুদ রাতুল হত্যা মামলায় আটক ভগ্নিপতি শিশির আহমেদ সোমবার ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। যশোরের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক গৌতম মল্লিক তার জবানবন্দি গ্রহণ করেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা যশোর ডিবি পুলিশের এসআই মো. শামীম হোসেন জানান, রাতুল হত্যা মামলায় নিহতের ভগ্নিপতি শিশিরকে আটকের পর ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়ে গত ১৭ জুলাই আদালতে সোপর্দ করা হয়। একই দিন শুনানি শেষে বিচারক তার দু’দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। সোমবার রিমান্ড শেষ হওয়ায় শিশিরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়। এ সময় শিশির আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।
ডিবি পুলিশের ওই কর্মকর্তা আরো জানান, রাতুল হত্যাকা-ের সাথে শিশির ও তার এক বন্ধু জড়িত রয়েছেন। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে শিশির তাদের এ তথ্য দিয়েছেন। শিশিরের ওই বন্ধুর বাড়ি কোটচাঁদপুর উপজেলার কাশিপুর গ্রামে। তাকে ধরতে তার বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছিলো। কিন্তু শিশিরের অভিযুক্ত বন্ধু পালিয়ে যাওয়ায় তাকে আটক করা যায়নি।
উল্লেখ্য, আটক শিশির কোটচাঁদপুর উপজেলার কাশিপুর গ্রামের হায়দার আলী ম-লের ছেলে। শ্বশুর দ্বারা অপদস্থ হয়ে প্রতিশোধ নিতে গত ১১ জুলাই শিশির তার শ্যালক রাতুলকে বেড়ানোর কথা বলে যশোরের চৌগাছায় ডেকে আনেন। এরপর চৌগাছার লস্করপুর শ্মশান মাঠের একটি পাটক্ষেতে নিয়ে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেন।

ভাগ