চার ভাগের একভাগ ইলিশ রপ্তানি হয়েছে ভারতে

বিশেষ সংবাদদাতা॥ বন্ধ হয়ে গেল ভারতে ইলিশ রপ্তানি। গতকাল পর্যন্ত সরকার অনুমোদিত চার ভাগের একভাগ ইলিশ রপ্তানি হয়েছে ভারতে। চলতি ইলিশের মৌসুমে পর্যাপ্ত পরিমাণ ইলিশ ধরা না পড়ায় এ বছর রপ্তানি কম হয়েছে বলে মনে করছেন রপ্তানিকারকরা।
জানা গেছে, ভারতের পশ্চিমবাংলায় আসন্ন দুর্গাপূজা উপলক্ষে সরকারের বিশেষ অনুমতিতে ১১৫টি প্রতিষ্ঠান ৪ হাজার ৬শ’ মে.টন ইলিশ রপ্তানির অনুমতি পায়। বাজারে মাছ সংকট এবং উচ্চমূল্যের কারণে ৫১টি প্রতিষ্ঠান ৩ অক্টোবর রোববার পর্যন্ত ১ হাজার ১শ’ ৮ মে. টন ইলিশ ভারতে রপ্তানি করতে পারে। অনুমোদন প্রাপ্ত বেশির ভাগ রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠান এ বছর বরাদ্দের ৪০ লাখ কেজি’র অনুমোদন নিয়েও এককেজি ইলিশও রপ্তানি করতে পারেননি। এবিষয়ে বেনাপোলের রপ্তানিকারক সততা ফিসের মালিক রেজা ও খোকন বলেন, এ বছর চাহিদার তুলনায় অনেক কম পরিমাণ ইলিশ ধরা পড়েছে। তাছাড়া দেশের বাজারের তুলনায় ভারতে রপ্তানি মূল্য কম হওয়ায় উচ্চমূল্যে বাজার থেকে ইলিশ কিনে তা রপ্তানি করা সম্ভব হয়নি। ২০১২ সাল থেকে ভারতে ইলিশ রফতানি বন্ধের পর থেকে প্রতিবছর দুর্গাপূজাকে ঘিরে সরকার বিশেষ অনুমতি পত্রে ভারতে ইলিশ রপ্তানির সুযোগ দিয়ে আসছে।
এ বছর ভারতে ইলিশ রপ্তানি শুরু হয় গত ২২কে সেপ্টেম্বর। প্রথমদিনে রপ্তানি হয় প্রায় ৮০ মে.টন। বেনাপোল মৎস পরিদর্শন ও মান নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, ৪ হাজার ৬শ’ মে. টনের বিপরীতে ৩ অক্টোবর রোববার পর্যন্ত ভারতে রপ্তানি হয়েছে মাত্র ১ হাজার ১০৮ মে.টন। ইলিশ রপ্তানি করে ১১ লাখ ২২ হাজার ৮শ’ মার্কিন ডলার বৈদেশিক মুদ্রা আয় হয়েছে যা বাংলাদেশি টাকায় ৯ কোটি ৫৪ লাখ ৩৮ হাজার টাকা।

ভাগ