সাংবাদিক শামছুর রহমান কেবলের ২১তম হত্যাবার্ষিকী আজ

স্টাফ রিপোর্টার॥ দৈনিক জনকণ্ঠের বিশেষ প্রতিনিধি শামছুর রহমানের ২১তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ ১৬ জুলাই। ২০০০ সালের এদিন রাত ৮টার দিকে তিনি দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন। অকুতোভয় এই সাংবাদিকের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে যশোরে সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন কর্মসূচি পালন করছে।
দীর্ঘ ২১ বছরেও শামছুর রহমান হত্যাকান্ডের বিচার সম্পন্ন হয়নি। দীর্ঘদিন ধরে মামলাটির কার্যক্রম স্থগিত হয়ে আছে। ২০০০ সালের ১৬ জুলাই শহরের দড়াটানা এলাকায় নিজ অফিসে কর্মরত অবস্থায় দৈনিক জনকণ্ঠের তৎকালীন বিশেষ প্রতিনিধি শামছুর রহমান দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন। নিহতের স্ত্রী সেলিনা আক্তার লাকি পরদিন কোতোয়ালি থানায় হত্যা মামলা রুজু করেন সুনির্দিষ্ট কাউকে আসামি না করে। পরে সিআইডি যশোর জোনের তৎকালীন এএসপি দুলালউদ্দিন আকন্দ দীর্ঘ তদন্ত শেষে ১৬ জনকে অভিযুক্ত করে মামলার চার্জশিট দাখিল করেন। অভিযুক্তদের মধ্যে কয়েকজন সাংবাদিকও রয়েছেন। অভিযুক্ত সাংবাদিকদের অভিযোগ, তৎকালীন সরকারের রাজনৈতিক অ্যাসাইনমেন্ট অনুযায়ী তদন্তকারী কর্মকর্তা মামলাটিতে কয়েকজন নিরপরাধ সাংবাদিকদের অভিযুক্ত করেন। পরে মামলাটি অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট। অধিকতর তদন্ত শেষে সিআইডি দৈনিক ইত্তেফাকের রিপোর্টার ফারাজী আজমল হোসেনকে মামলাটিতে নতুন করে অভিযুক্ত করে সম্পূরক চার্জশিট দাখিল করে। মামলা চলাকালে অন্যতম আসামি খুলনার টপটেরর লিটু ক্রসফায়ারে নিহত হয়।
২০০৫ সালে মামলাটির বিচার কার্যক্রম শুরু হয় যশোরের জজ আদালতে। কিছুদিন পর চাঞ্চল্যকর মামলাটি স্থানান্তরিত হয় খুলনা দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে। বাদী সেলিনা আক্তার লাকির অভিযোগ, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ না করেই মামলাটি খুলনায় নিয়ে যাওয়া হয়। খুলনায় তাদের নিরাপত্তা সমস্যা রয়েছে জানিয়ে তিনি আবেদন জানান মামলাটি যশোরে ফিরিয়ে আনার। কিন্তু বাদীর এ আবেদন আদালতে অগ্রাহ্য হয়। পরে তিনি হাইকোর্টের শরণাপন্ন হন। হাইকোর্ট মামলাটির বিচার কার্যক্রম স্থগিত করে দেন। সেই থেকে আজ পর্যন্ত মামলাটির বিচার কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।
সাংবাদিক শামছুর রহমান কেবলের হত্যামামলাটি পুনরায় চালু ও প্রকৃত দোষীদের বিচার দাবিতে যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোরের জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে নেতৃবৃন্দ স্মারকলিপি দেন। এছাড়াও জেইউজে হত্যার দিন ১৬ জুলাই বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। করোনা পরিস্থিতির কারণে এবারও সংক্ষিপ্ত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে কালো ব্যাজ ধারণ, শোক র‌্যালি ও শহীদের কবর শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন ও দোয়া প্রার্থনা। একই দিনে কর্মসূচি পালন করবে সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোর।

ভাগ