মাছ ধরতে গিয়ে ৩২ জেলে ৬ দিন ধরে নিখোঁজ

লোকসমাজ ডেস্ক॥ বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলায় আব্দুর রহমানের মালিকানাধীন এফবি মায়ের দোয়া ট্রলারের ১২ জেলে ও মো. লিটন মাহমুদের মালিকানাধীন এফবি আব্দুল্লাহ ট্রলারের ২০ জেলে ৬ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছে। বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। নিখোঁজ জেলেরা হলেন, এফবি মায়ের দোয়া ট্রলারের পাথরঘাটা উপজেলার মঠেরখাল এলাকার নুর মোহাম্মাদ মিস্ত্রির ছেলে শাহ জাহান, ছত্তার মোল্লার ছেলে আব্দুর রশিদ, খালেক মিস্ত্রির ছেলে মাসুদ, আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে আমির হোসেন, আব্দুর রহমানের ছেলে মিরাজ, নুরু মিয়ার ছেলে ছগির, তাফালবাড়ি এলাকার খলিল গোলদারের ছেলে ফারুক, আব্দুর রহমানের ছেলে আব্দুস ছত্তার, আব্দুল লতিফের ছেলে নাসির, জ্ঞানপাড়া এলাকার আব্দুল গনির ছেলে খলিল, কুদ্দুসের ছেলে আবুল কালাম, বড় টেংরা এলাকার আবুল হাসেমের ছেলে ফুল মিয়া এবং এফবি আব্দুল্লাহ ট্রলারের খোকন মাঝি, হুমায়ুন, শাহজাহান ও রাসেল। এফবি আব্দুল্লাহ ট্রলারের অন্য জেলেদের নাম জানা যায়নি। তাদের বাড়ি নোয়াখালী জেলার আলেকজান্ডার উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়।
এফবি আব্দুল্লাহ ট্রলারটি গত ২৫ সেপ্টেম্বর এবং ২৪ সেপ্টেম্বর এফবি মায়ের দোয়া ট্রলারটি মাছ শিকারের জন্য বঙ্গোপসাগরে যায়। ২৮ সেপ্টেম্বরের পর এফবি মায়ের দোয়া ট্রলারের মাঝি শাহজাহানের সঙ্গে আর কোনো যোগাযোগ করতে পারেননি ট্রলার মালিক। এছাড়া আব্দুল্লাহ ট্রলারের মালিক লিটন মাহমুদ তার মাঝিদের সঙ্গে সাগরে যাওয়ার পর থেকে যোগাযোগ করতে পারেননি। ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী জানান, বিষয়টি জানার পর জেলেদের সন্ধানে জেলা ট্রলার মালিক সমিতির পক্ষ থেকে ৩টি ট্রলার সাগরে পাঠানো হয়েছে। দুইদিনেও তারা কোনো খোঁজ দিতে পারেনি। এ বিষয়ে কোস্টগার্ডের পাথরঘাটা স্টেশনের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট ফাহিম শাহরিয়ার সাংবাদিকদের জানান, কোস্টগার্ডের দক্ষিণ জোন ও পশ্চিম জোনসহ সবাইকে জানানো হয়েছে। নিখোঁজ ট্রলার ও জেলেদের উদ্ধারের জন্য অভিযান চলছে।

ভাগ