ফ্যাটি লিভারের রোগী যে ১০ নিয়ম অবশ্যই মানবেন

লোকসমাজ ডেস্ক॥ লিভার শরীরের গুরুত্বপূর্ণ এক অঙ্গ। শরীর সুস্থ রাখতে এই বিশেষ অঙ্গ নানা ধরনের কাজ করে থাকে। এ কারণে লিভারের স্বাস্থ্য ভালো রাখাটা খুবই জরুরি। তবে বর্তমানে অনিয়মিত জীবনযাত্রার কারণে এই কার্যকরী অঙ্গটির উপর বিরূপ প্রভাব ফেলছে।
এক্ষেত্রে দুশ্চিন্তা ও খারাপ খাবারের অভ্যাসে লিভারে বাসা বাঁধছে নানা রোগ। এ ছাড়াও ওজন বেশি থাকা, শরীরচর্চা না করা ও কম ঘুমানোর কারণে লিভারে চর্বি জমতে পারে। যাকে বলা হয় ফ্যাটি লিভার। এক্ষেত্রে রোগীর লিভারে চর্বি জমার কারণে তা ঠিকমতো কাজ করতে পারে না।
ফ্যাটি লিভার সাধারণত দু’ধরনের হয়- অ্যালকোহোলিক ফ্যাটি লিভার ডিজিজ ও নন অ্যালকোহোলিক ফ্যাটি লিভার ডিজিজ। মদ্যপান থেকে হয় অ্যালকোহোলিক ফ্যাটি লিভার ডিজিজ।
অন্যদিকে নন অ্যালকোহলিক ফ্যাটি লিভার ডিজিজের কারণ হলো জীবনযাত্রার ভুল। এই রোগ লিভার সিরোসিস থেকে শুরু করে বিভিন্ন সমস্যার কারণ হতে পারে। ফ্যাটি লিভার সারাতে হলে প্রথমই নজর দিতে হবে খাওয়াদাওয়া ও শরীরচর্চার দিকে।
এ বিষয়ে ফরাজী হাসপাতালের পুষ্টিবিদ ডা. রুবাইয়া পারভীন রীতি বলেন, ‘ফ্যাটি লিভার হওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ হলো ওজন বৃদ্ধি, ফাস্টফুড খাওয়া, অতিরিক্ত মাত্রায় চিনি ও মিষ্টি খাওয়া, নিয়মিত ব্যায়াম না করা, মদ্যপান ও অতিরিক্ত মাত্রায় কোল্ড ড্রিংকস খাওয়া। তাই প্রথমেই এসব বিষয়ে সচেতন হতে হবে।’
তিনি জানিয়েছেন ফ্যাটি লিভার হলে কয়েকটি বিষয় মেনে চলা জরুরি। তাহলে দ্রুত লিভারের চর্বি দূর করা সম্ভব। জেনে নিন ডা. রুবাইয়া রীতির পরামর্শ অনুযায়ী কেমন হবে ফ্যাটি লিভারের রোগীর ডায়েট-
>> অতিরিক্ত কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার বর্জন করুন।
>> চিনি ও মিষ্টি খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দিন।
>> যে কোনো দু’বেলা পেঁপের তরকারি বা পেপে ভর্তা খাবেন।
>> গ্রিন টি বা কালো চা লেবুর রসের সঙ্গে মিশিয়ে পান করুন।
>> ঘন দুধের বদলে পাতলা দুধ পান করুন। চাইলে টকদই খেতে পারেন নিয়মিত।
>> সবুজ শাক-সবজি ও সালাদ বেশি করে খাবেন।
>> বাইরের খাবার, ফাস্টফুড, কোল্ড ড্রিংকস এড়িয়ে চলুন।
>> প্রতিদিন অন্তত এক ঘণ্টা হাঁটুন।
>> মদ্যপান থেকে বিরত থাকুন।
>> রাত ১১ টার মধ্যে ঘুমাবেন ও ফজরের ওয়াক্তে ঘুম থেকে উঠবেন।

ভাগ