জান্তার আদালতে প্রথম রায়ের অপেক্ষায় সু চি

লোকসমাজ ডেস্ক॥ মিয়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত নেতা অং সান সু চির বিরুদ্ধে জান্তার আদালত প্রথম রায় ৩০ নভেম্বর ঘোষণা করবে। লাইসেন্সবিহীন ওয়াকি-টকি রাখা এবং করোনাভাইরাসের বিধিনিষেধ লঙ্ঘনসহ একাধিক অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে। রবিবার মার্কিন বার্তা সংস্থা এপি এখবর জানিয়েছে। ১ ফেব্রুয়ারি অভ্যুত্থানের দিন সকালেই বন্দি করা হয় নোবেল জয়ী সু চিকে। এই অভ্যুত্থানে দেশটির স্বল্পকালীন গণতন্ত্রের অবসান হয়েছে। সামরিক সরকারের বিরোধিতায় বিক্ষোভে নামা গণতন্ত্রপন্থীদের কঠোর হস্তে দমন করেছে সেনাবাহিনী। ১ হাজার ২০০ জনের বেশি বিক্ষোভকারী নিহত ও দশ সহস্রাধিক মানুষকে গ্রেফতার করেছে সামরিক সরকার।
২০২০ সালের নভেম্বরে মিয়ানমারের নির্বাচনে জয়ী হয় সু চির নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসি (এনএলডি)। সেনাবাহিনী নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ তুলে ক্ষমতা দখল করেছে। সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে উসকানির অভিযোগেও সু চির বিচার চলছে বিশেষ আদালতে। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, এর মধ্য দিয়ে সু চির রাজনৈতিক জীবন শেষ করে দিতে চাইছে সামরিক সরকার। অবশ্য সু চিকে নিয়ে জান্তা সরকারের পরিকল্পনা নিশ্চিতভাবে জানা যায়নি। বিশ্লেষকদের ধারণা, কর্তৃপক্ষ সু চির বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা পিছিয়ে দিতে পারে। বিশেষ আদালতের বিচারকার্যে সাংবাদিকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। সু চির আইনজীবীকেও সংবাদমাধ্যমে সঙ্গে কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না। ডেভিড ম্যাথিয়েসন নামের এক বিশ্লেষক বলেন, আমি প্রায় নিশ্চিত যে সু চি কঠোর দণ্ড পাবেন।

ভাগ