ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট : সব বিদেশীর জন্য প্রবেশ নিষিদ্ধ করবে ইসরাইল

লোকসমাজ ডেস্ক॥ করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন সংক্রমণের জেরে সব বিদেশী নাগরিকদের জন্য ইসরাইলে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে যাচ্ছে দেশটির সরকার। শনিবার ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেত এক বিবৃতিতে এই কথা জানান। মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য অপেক্ষমান থাকা এই নিষেধাজ্ঞা ১৪ দিনের জন্য কার্যকরী হবে বলে বিবৃতিতে জানান বেনেত। মন্ত্রিসভার অনুমোদনের পর রোববার মাঝরাত থেকে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। এর আগে শুক্রবার ইসরাইলে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত রোগীদের মধ্যে একজনের মধ্যে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের তথ্য জানায় দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তবে ওই ব্যক্তি টিকা গ্রহণ করেছিলেন কি না, সে বিষয়ে কোনো তথ্য প্রকাশ করা হয়নি। ইসরাইলে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমণের তথ্য প্রকাশের পরপরই এই পদক্ষেপের ঘোষণা দিয়েছে দেশটি। করোনাভাইরাসের নতুন ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট প্রথম দক্ষিণ আফ্রিকায় শনাক্ত হয়। পরে তা দেশটির প্রতিবেশী আফ্রিকা মহাদেশের দক্ষিণাঞ্চলীয় বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পরে। বিশ্বে ত্রাস সৃষ্টিকারী করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট থেকে শক্তিশালী ও ‘উদ্বেগজনক ভ্যারিয়েন্ট’ হিসেবে ইতোমধ্যেই ঘোষিত হওয়া এই ভ্যারিয়েন্ট সংক্রমণ প্রতিরোধে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ দক্ষিণ আফ্রিকা ও এর প্রতিবেশী দেশগুলোতে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।
এদিকে শনিবার রাতে এক টুইটবার্তায় নাফতালি বেনেত বলেন, ‘আমরা বর্তমানে এক অনিশ্চয়তার মধ্যে আছি। এটি মানার মতো নয় কিন্তু ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে আমাদের বিপুল অর্জন বজায় রাখতে আমরা বদ্ধপরিকর।’ হিব্রুতে দেয়া এই টুইটে তিনি বলেন, ‘সচল অর্থনীতি ও উন্মুক্ত শিক্ষাব্যবস্থার মুক্ত ইসরাইল আমাদের অগ্রাধিকারের বিষয়। এই লক্ষ্যে আমাদের রাষ্ট্রের সীমানা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা এবং কম ঝুঁকি নিয়ে সতর্কতার সাথে অগ্রসর হওয়া প্রয়োজন।’ এদিকে ইসরাইলের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আয়েলেত শাকেদ শনিবার ইসরাইলি সংবাদমাধ্যম এন টুয়েলভের ‘মিট দ্য প্রেস’ অনুষ্ঠানে বলেন, ‘আমাদের অনুসন্ধানের অনুমান হচ্ছে প্রায় সব দেশেই ইতোমধ্যে এই ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়ে পড়েছে। এর বিরুদ্ধে টিকা কতোটা কার্যকরী তা আমাদের জানা নেই।’ নতুন নিষেধাজ্ঞার অধীনে ইসরাইলের নাগরিক ছাড়া সবার জন্য দেশটিতে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হচ্ছে। তবে দেশের বাইরে থেকে আসা ইসরাইলি নাগরিকদের টিকা দেয়া থাকলে তিনদিন ও টিকা না দেয়া থাকলে সাতদিনের জন্য কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। সংক্রমণ প্রতিরোধে অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা সংস্থা শিনবেতের ফোন ট্র্যাকিং প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে বলে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতিতে জানানো হয়। এদিকে ইতোমধ্যেই আফ্রিকার বাইরে বেলজিয়াম, হংকং, ইতালি, জার্মানি ও ব্রিটেনে এই ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত রোগীর সন্ধান পাওয়া গেছে। ইসরাইলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুসারে ৯৪ লাখ জনসংখ্যার ৫৭ ভাগ ইতোমধ্যেই টিকা নিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুসারে, রোববার পর্যন্ত ইসরাইলে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন ১৩ লাখ ৪১ হাজার আট শ’ ৮১ জন। ভাইরাস সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে আট হাজার এক শ’ ৮৪ জনের।
সূত্র : আলজাজিরা, বিবিসি ও মিডল ইস্ট আই

ভাগ