শেয়ার বাজার এখন কতটা ঝুঁকিপূর্ণ?

লোকসমাজ ডেস্ক॥ একদিকে পুঁজিবাজারের গুরুত্ব বাড়ছে অন্যদিকে ঝুঁকিও বাড়ছে এই বাজারে। বিশেষ করে কম মূলধনের কোম্পানিতে বিনিয়োগ করে ফেঁসে গেছেন অনেকেই। বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে , মাস দুয়েক আগে লাগামহীনভাবে বাড়তে থাকা স্বল্প মূলধনি ও দুর্বল কোম্পানির শেয়ারগুলোর দর আর বাড়ছে না, উল্টো কমছে। তথ্য বলছে, কয়েক মাসের ব্যবধানে কিছু শেয়ারের দাম বেড়ে দ্বিগুণ থেকে চার গুণের বেশি হয়েছে।
বিশ্লেষকরা বলছেন, শেয়ারের দাম যত বেশি হবে, বিনিয়োগের ঝুঁকিও তত বেশি হবে। অর্থাৎ গত বছরের তুলনায় এখন বাজারে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ঝুঁকি কিছুটা বেশি। ঢাকার শেয়ার বাজারে ঝুঁকি যে বেড়েছে, তার প্রমাণ পাওয়া যায় গত একমাসে বেশ কয়েকটি কোম্পানিকে সতর্ক করা হয়েছে। সর্বশেষ প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) তিনটি কোম্পানির শেয়ার নিয়ে সতর্কবার্তা জারি করেছে। কোম্পানি তিনটি হলো— সাইফ পাওয়ারটেক, ডেল্টা লাইফ ও ইউনিক হোটেল লিমিটেড। জানা গেছে, গত একমাসে সাইফ পাওয়ারের শেয়ারের দর ৩৮.৭০ শতাংশ বেড়েছে। একইভাবে ডেল্টা লাইফ ইন্সুরেন্সের শেয়ারের দর বেড়েছে ৩৯.২৮ শতাংশ বেড়েছে। এছাড়া ইউনিট হোটেলের শেয়ারের দর বেড়েছে ৪২.৪০ শতাংশ।
এদিকে জিডিপিতে শেয়ার বাজারের অবদান ৫০ শতাংশ করার জন্য বর্তমান কমিশন কাজ করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কমিশনার ও সাবেক সচিব মো. আব্দুল হামিদ। তিনি বলেন, জিডিপিতে মার্কেটের এমন বড় অবদান রাখার জন্য মার্কেটের যেসব পিলার শক্তিশালী করা দরকার তাই করা হবে। বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) বিশ্ব বিনিয়োগকারী সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সিডিবিএল-এর চেয়ারম্যান শেখ কবির হোসাইন। এদিকে গত সপ্তাহে দেশের শেয়ার বাজার কিছুটা মন্দার মধ্যে গেলেও বড় মূলধনের বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়েছে। এতে প্রধান শেয়ার বাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) বাজার মূলধন প্রায় ছয়শ কোটি টাকা বেড়েছে। এর মাধ্যমে টানা তিন সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বাড়লো সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসের লেনদেন শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ৮২ হাজার ১২৪ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল পাঁচ লাখ ৮১ হাজার ৫৪৩ কোটি টাকা। অর্থাৎ গত সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বেড়েছে ৫৮১ কোটি টাকা। আগের দুই সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বাড়ে ছয় হাজার ৯৬৮ কোটি টাকা। এ হিসাবে তিন সপ্তাহে ডিএসইর বাজার মূলধন বাড়লো সাত হাজার ৫৪৯ কোটি টাকা। অবশ্য তিন সপ্তাহের এই উত্থানের আগে বাজার মূলধন কমে ১১ কোটি ৮৪৩ কোটি টাকা। বাজার বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, প্রধান মূল্যসূচকের পাশাপাশি গত সপ্তাহে ইসলামি শরিয়াহ্ ভিত্তিতে পরিচালিত কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই শরিয়াহ্ সূচকও বেড়েছে। গত সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয়েছে দুই হাজার ৫৪৪ কোটি ৯৯ লাখ টাকা। তার আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় দুই হাজার ২২৯ কোটি ১৩ লাখ টাকা। তথ্য বলছে, গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয় ১২ হাজার ৭২৪ কোটি ৯৬ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১১ হাজার ১৪৫ কোটি ৬৬ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন বেড়েছে এক হাজার ৫৭৯ কোটি ৩০ লাখ টাকা বা ১৪ দশমিক ১৭ শতাংশ।

ভাগ