ক্ষোভ প্রকাশ করে আদালতে যা বললেন আরিয়ান খান

লোকসমাজ ডেস্ক॥ মুম্বাই থেকে গোয়াগামী একটি প্রমোদতরীতে মাদক-পার্টিতে অংশ নিয়েছিলেন শাহরুখপুত্র আরিয়ান। সেখান থেকে ৩ অক্টোবর তাকে আটক করে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)। তারকাপুত্র বলে এনসিবির কাছে কোনো ছাড় পেলেন না শাহরুখের ছেলে আরিয়ান খান। কয়েক দফা রিমান্ড শেষে আরিয়ানকে ১৪ দিনের জেল দিয়েছে মুম্বাই মেট্রোপলিটন আদালত। গতকাল শুক্রবার (৮ অক্টোবর) এ মামলার শুনানি হয়। সেখানে আরিয়ান তার আইনজীবী সতীশ মানেশিন্ডের মাধ্যমে নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন। সেই বক্তব্যে তার ওপর অন্যায় হচ্ছে দাবি করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন তিনি। তবে সেই বক্তব্য খুশি করতে পারেনি আদালতকে। তাই জামিন পাননি আরিয়ান।
শুনানিতে আরিয়ান নিজেকে নির্দোষ দাবি করেন। তিনি ওইদিন কোনো মাদক নেননি বলে জানান। সেই সঙ্গে প্রশ্ন তোলেন, ওই পার্টিতে ১৩শ’র উপরে লোক ছিল। সেখান থেকে শুধু ১৭ জনকে কেন গ্রেফতার করা হলো। আরিয়ান আরও বলেন, প্রমোদতরীতে ওঠার সময় তার ব্যাগ পরীক্ষা করা হয়েছিল, সেখানে মাদক মেলেনি। যদিও মাদক নিয়ন্ত্রক সংস্থার (এনসিবি) দাবি, মাদক সেবনের কথা স্বীকার করেছেন আরিয়ান। বৃহস্পতিবার আরিয়ানকে ১৪ দিনের জন্য জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেয় আদালত। এর পরই শাহরুখ নিযুক্ত আইনজীবী সতীশ মানশিণ্ডে তার অন্তর্বর্তী জামিনের আবেদন করেন। শুক্রবার জামিনের শুনানির সময় নিজের ক্ষোভ উগরে দেন শাহরুখ-তনয়। আরিয়ান জানিয়েছেন, প্রতীক নামে তার এক বন্ধু এই পার্টির আয়োজকদের সঙ্গে তার আলাপ করিয়েছিলেন। সেই ব্যক্তি আরিয়ানকে প্রমোদতরীর পার্টিতে আসার জন্য অনুরোধ করেছিলেন। আরিয়ানকে জানানো হয়েছিল, তার নাম থাকবে ‘ভিভিআইপি’ তালিকায়। শাহরুখ খানের পুত্র এলে পার্টির জাঁকজমক বেড়ে যাবে। মূলত এই কারণেই নাকি ডেকে আনা হয়েছিল আরিয়ানকে।
আরিয়ানের আইনজীবীর দাবি, তার মক্কেল এবং প্রতীকের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট খতিয়ে দেখলেই সত্যি বেরিয়ে আসবে। আরিয়ানের সঙ্গী আরবাজ শেঠ মার্চেন্টের সঙ্গেও পরিচয় রয়েছে প্রতীকের। আরিয়ান জানিয়েছেন, প্রমোদতরীতে ওঠার পরই তার ব্যাগ তল্লাশি করেন এনসিবি-র আধিকারিকরা। কিন্তু খোঁজাখুঁজির পরও নাকি তারা শাহরুখপুত্রের কাছ থেকে কোনো মাদক পাননি। আরিয়ান বলেছেন, ‘ওই পার্টির আয়োজকদের সঙ্গে আমার কোনো যোগাযোগ নেই। আরবাজের সঙ্গে বন্ধুত্বের কথা আমি অস্বীকার করছি না। কিন্তু ওর ক্রিয়াকলাপের সঙ্গে আমি যুক্ত নই।’ এসব যুক্তিতে মন গলেনি আদালতের। তাই আরও ১৪ দিন আর্থার রোডের জেলেই থাকতে হচ্ছে আরিয়ানকে। এ নিয়ে পুরো বলিউডে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে। সোশ্যাল মিডিয়ায়ও চলছে সমালোচনা, বিজেপি সরকারের আক্রোশের শিকার হচ্ছেন শাহরুখ খানের পুত্র।

ভাগ