বার্সা পারবে চার বছর আগের স্মৃতি ফিরিয়ে আনতে?

লোকসমাজ ডেস্ক॥ প্রতিপক্ষের মাঠে ৪-০ গোলে হার। ফিরতি লেগে অসাধারণ প্রত্যাবর্তন। আগের লেগে হেরে যাওয়া দল ঘরের মাঠে জিতল ৬-১ ব্যবধানে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে সেরা প্রত্যাবর্তনের গল্প এটি। যা আজ থেকে চার বছর আগে করে দেখিয়েছিল বার্সেলোনা, পিএসজির বিরুদ্ধে। চার বছর আগের সেই গল্প অবতারণার কারণ আছে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোতে মঙ্গলবার রাতে পিএসজির মাঠে ৪-১ গোলে হেরেছে বার্সেলোনা। চার বছর আগে শেষ ষোলোর প্রথম লেগে পিএসজির কাছে ঠিক এভাবেই হেরেছিল বার্সা। ফিরতি লেগে বার্সা ইতিহাস গড়তে পেরেছিল, কিন্তু প্রশ্ন হলো এবার পারবে কি? চার বছর আগের সেই ম্যাচের প্রথম লেগে ঘরের মাঠে পিএসজি জিতেছিল ৪-০ গোলে। ডি মারিয়া করেছিলেন জোড়া গোল। ড্রাক্সলার ও কাভানি করেছিলেন একটি করে গোল। কোয়ার্টার ফাইনালে যেতে বার্সার ফিরতি পর্বে জেতার সমীকরণ ছিল ৫-০। কিন্তু ন্যু ক্যাম্পে পিএসজি একটি গোল দিলে বিপরীতে দুটি দিতে হবে তাদের, এমন কঠিন সমীকরণও চোখ রাঙাচ্ছিল।
বলতে গেলে অসম্ভব এক টার্গেটে খেলতে নেমেছিল বার্সা। শুরু থেকে শেষ অবধি ম্যাচটিতে ছিল টানটান উত্তেজনা আর রোমাঞ্চ। ৩ মিনিটে সুয়ারেজের গোলে এগিয়ে যায় বার্সা। ৪০ মিনিটে আত্মঘাতি গোল পিএসজির। দ্বিতীয়ার্ধের ৫০ মিনিটে মেসির পেনাল্টি থেকে গোল। স্কোর ৩-০। ৬২ মিনিটে পিএসজির হয়ে এক গোল করে সমীকরণ কঠিন করেন এডিনসন কাভানি। বার্সাকে জিততে হলে করতে হবে বাকি সময়ে তিন গোল। শেষের ঝলক দেখান নেইমার। ৮৮ মিনিটে করেন নিজের প্রথম গোল। অতিরিক্ত সময়ের প্রথম মিনিটে স্পট কিক থেকে দ্বিতীয়টি। ব্যবধান তখন ৫-৫, দুই লেগ মিলিয়ে। অতিরিক্ত সময়ের শেষ মুহূর্তে পিএসজির জাল কাপান সার্জিও রবার্তো। রুদ্ধশ্বাস জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে বার্সোলোনা (৬-১)। দুই লেগ মিলিয়ে বার্সার জয় ৬-৫। এবারও শেষ ষোলোতে বার্সা হেরেছে পিএসজির কাছে। তবে এবার ভেন্যুটা উল্টে গেছে। চার বছর আগে বার্সা প্রথম লেগে হেরেছিল প্রতিপক্ষের মাঠে। এবার হেরেছে ঘরের মাঠে। তার মানে, চ্যালেঞ্জটা বেশি থাকছে বার্সার। কারণ ইতিহাস গড়তে হলে প্রতিপক্ষের মাঠে ন্যুনতম ৪-০ গোলে জিততে হবে তাদের। সেই কাজটি বার্সা করতে পারবে, তা আগাম কেউ বলে দিতে পারছে না। কারণ চার বছর আগের বার্সা এখন আর নেই। ধার কমেছে যেমন মেসির, নেই অনেক খেলোয়াড়ও।
নেই সুয়ারেজ। চলে গেছেন অ্যাটলেটিকোতে। মেসির সবচেয়ে কাছের সতীর্থ, সেই নেইমারও এখন পিএসজিতেই। যদিও প্রথম লেগে মেসিদের মুখোমুখি নামতে পারেননি তিনি, চোটের কারণে। কিন্তু ফিরতি লেগে দেখা হয়েও যেতে পারে। সব মিলিয়ে বার্সার সামনে এবার পাহাড়সম চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ জিততে না পারলে দীর্ঘ দিন পর চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিতে হবে কাতালানদের। পিএসজি ঘরের মাঠে সেই সুযোগ বার্সাকে দেবে, তা মনে হয় না। ফর্মের চূড়ায় আছেন এমবাপে। নু ক্যাম্পেই তিনি করেছেন হ্যাটট্রিক। ঘরের মাঠে বার্সাকে আরো ডুবাতে নিশ্চয় নতুন পরিকল্পনা আটছেন ফ্রান্সের এই স্ট্রাইকার। তবে শেষ বলে কোনো কথা নেই। গোলের খেলা ফুটবল। খাদের কিনারা থেকে উঠে আসতে এখন থেকেই নতুন পরিকল্পনায় নেমেছে হয়তো মেসিরা।

ভাগ