গার্দিওলা চান বার্সাতেই শেষ করুন মেসি, তবে..

লোকসমাজ ডেস্ক॥ না, তিনি লিওনেল মেসিকে ফুঁসলে ম্যানচেস্টার সিটিতে নিতে চাইছেন, ব্যাপারটি তা নয়। পেপ গার্দিওলা চান বার্সেলোনাতেই ক্যারিয়ারটা শেষ হোক আর্জেন্টাইন সুপারস্টারের। কিন্তু তিনি জানেন না মেসি নিজে কী করবেন। কারণ এটাই যে বার্সেলোনায় মেসির শেষ মৌসুম। বৃহস্পতিবার ম্যানচেস্টার সিটির সঙ্গে দুই বছরের নতুন চুক্তি করার ৪৮ ঘণ্টা পরই ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে বড় এক পরীক্ষার সামনে দাঁড়াবেন গার্দিওলা। শনিবার টটেনহাম হটস্পারের সঙ্গে ম্যাচ। টটেনহামের ডাগআউটে অপেক্ষায় থাকবেন তার পুরোনো প্রতিদ্বন্দ্বী জোসে মরিনিয়ো। ২০১২ সালে কোচ হিসেবে তার বার্সেলোনা ক্যারিয়ারের অদম্য যাত্রা থেমে গিয়েছিল যার সামনে। সিটিজেনদের হয়ে একটা নতুন শুরুর সময় সেই মরিনিয়োই সামনে পড়ে গেলেন আবার।
ওই ম্যাচের আগের সংবাদ সম্মেলনে শুক্রবার গার্দিওলাকে অবশ্য মরিনিয়ো বিষয়ক প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়নি। কথা বলতে হয়েছে মেসিকে নিয়ে। কারণ সিটিতে নতুন চুক্তি করার পর সাবেক ছাত্রের ভবিষ্যৎও তার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত হয়ে পড়েছে বলে ধারণা। গত গ্রীষ্মে মেসি সিটিতে আসার খুব কাছাকাছি ছিলেন। আগস্ট মাসে ট্রান্সফারের আবেদন করেছিলেন, কিন্তু বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ তাকে আটকে দেন রিলিজ ক্লজের মারপ্যাঁচে। এবার সেই বাধা নেই। আগামী গ্রীষ্ম পর্যন্তই চুক্তি আছে মেসির, এমনকি আইনত তিনি স্পেনের বাইরে যেকোনও ক্লাবের সঙ্গে প্রাক-চুক্তি সেরে ফেলতে পারেন ১ জানুয়ারি থেকেই। বিবিসি গার্দিওলাকে উদ্ধৃত করেছে এভাবে, ‘মেসি বার্সেলোনার খেলোয়াড়। আমি মনে হয় হাজার বলেছি এই কথা। একজন ভক্ত হিসেবে চাইবো মেসি সেখানেই শেষ করুক।’ গত মৌসুমে বার্সেলোনা ছেড়ে আসার বড় বাধা ছিলেন বার্তোমেউ। ২৬ অক্টোবর তিনি পদত্যাগ করেছেন। কিন্তু তারপরও মেসির ভবিষ্যৎ মেসির কাছেই বাঁধা দেখছেন গার্দিওলা, ‘তার চুক্তি শেষ হবে এ মৌসুমে এবং আমি জানি না তার মনের মধ্যে কী আছে।’ শুধু যে ম্যানচেস্টার সিটিকে ঘিরেই গুঞ্জন আছে তা নয়, ৩৩ বছর বয়সী ফুটবল জাদুকরকে নিতে চায় প্যারিস সেন্ত জার্মেইও। গত গ্রীষ্মের আকস্মিক ঝড়ে এলোমেলো বার্সেলোনা সাংগঠনিকভাবে সুস্থিতি ফেরাতে চায় আগামী ২৪ জানুয়ারি নির্ধারিত নির্বাচনের মাধ্যমে। প্রত্যেক সভাপতি প্রার্থীই বলছেন মেসিকে ন্যু ক্যাম্পে ধরে রাখাটাই তাদের নির্বাচনি ইশতেহারের প্রথম দফা। গার্দিওলারও প্রবল টান আছে বার্সেলোনার প্রতি, ‘বার্সেলোনা আমার জন্য যা করেছে, সেজন্য আমার অশেষ কৃতজ্ঞতা তাদের কাছে। একাডেমিতে প্রথমে খেলোয়াড় হিসেবে ও পরে ম্যানেজার হিসেবে তারা আমাকে প্রায় সবকিছুই দিয়েছে। মেসি এই মুহূর্তে বার্সেলোনার খেলোয়াড় এবং দলবদলের বাজারটা জুন এবং জুলাইয়ে। আমাদের সামনে অসাধারণ কিছু ম্যাচ ও লক্ষ্য আছে, আমরা যা অর্জন করতে চাই। এটাই এখন আমাদের মনের মধ্যে কাজ করছে। এর বাইরে কী ঘটে, আমি বলতে পারবো না কিছুই।’

ভাগ