বেজপাড়ায় পুলিশের সোর্স সন্দেহে যুবকের মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরে পুলিশের সোর্স সন্দেহে রমজান আলী (২৬) নামে এক যুবকের মোটরসাইকেলে পেট্রোল ঢেলে পুড়িয়ে দিয়েছে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা। গত মঙ্গলবার গভীর রাতে শহরের বেজপাড়া মেইন রোডে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় আগুনে ব্যাটারিচালিত একটি রিকশাও পুড়ে গেছে। পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত হাবিব নামে এক সন্ত্রাসীকে আটক করেছে। শহরের বকচর হুশতলাস্থ র‌্যাব অফিসের পাশের জনৈক আব্দারের বাড়ির ভাড়াটিয়া শফি শেখের ছেলে রমজান আলীর অভিযোগ, বেজপাড়া বিহারী কলোনির আলমের ছেলে রাব্বি (২৭), বেজপাড়া মসজিদ রোডের মৃত রোস্তম আলীর ছেলে হাবিব (৩৫), বেজপাড়া আজিমাবাদ কলোনির বাবলুর ছেলে খুরশিদ (৩৫), আসলাম কসাইয়ের ছেলে জনি (৩২) ও কালু (২২) এবং মৃত আসলামের ছেলে আকাশ (২৮) চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও মাদক ব্যবসায়ী। তারা এলাকায় নানা অপরাধমূলক কর্মকা-ের সাথে জড়িত। কিন্তু তাদের সন্দেহ তিনি পুলিশকে ওই সন্ত্রাসীদের বিষয়ে তথ্য সরবরাহ করে থাকেন। এ কারণে তারা বেশ কিছুদিন ধরে তাকে ক্ষতি করার হুমকি দিয়ে আসছিলো। গত মঙ্গলবার রাত ১২ টার দিকে তিনি তার টিভিএস কোম্পানির আরটিআর অ্যাপাচি মোটরসাইকেলে করে বেজপাড়া মেইন রোডের বাসিন্দা রেজাউল করিম সোহাগের বাড়িতে দাওয়াতে যান। এ সময় উল্লিখিত সন্ত্রাসীরা তাকে দেখতে পেয়ে সেখানে যায়। তারা তাকে হুমকি দিয়ে বলে যে, ‘তুই আমাদের ব্যাপারে পুলিশকে তথ্য দিস, তোকে দেখিয়ে দেবো’। কিন্তু রমজান আলী তাদের কথার কোন প্রতিবাদ না করে পাশের রিকশা গ্যারেজে মোটরসাইকেল রেখে দাওয়াত খেতে রেজাউল করিম সোহাগের বাড়িতে ঢোকেন। এর আধাঘন্টা পর উল্লিখিত সন্ত্রাসীরা গ্যারেজে ঢুকে পেট্রোল ঢেলে মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় আগুনে মোটরসাইকেল ছাড়াও গ্যারেজে থাকা একটি ব্যাটারিচালিত রিকশা পুড়ে যায়। পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় রমজান আলী বুধবার উল্লিখিত সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে কোতয়ালি থানায় মামলা করেছেন। পরে সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে এজাহারভুক্ত আসামি হাবিবকে বেজপাড়া থেকে আটক করা হয়। দুপুরে তাকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

ভাগ