বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা মিলিয়ে কোয়ারেন্টিনের প্রস্তাব লঙ্কান বোর্ডের

লোকসমাজ ডেস্ক॥ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কা সফর। কোয়ারেন্টিন নিয়ে চলছে টানাটানি। শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী, ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতেই হবে বাংলাদেশ দলকে। কিন্তু এই শর্তে রাজি নয় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এই অবস্থায় একটা সমাধানে আসতে চাইছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি)। টেস্ট সিরিজটি ‘বাঁচানোর’ লক্ষ্যে কোয়ারেন্টিনের সময় নাকি ভাগ করে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছে তারা বিসিবিকে। ক্রিকেটবিষয়ক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোর খবর, লঙ্কান বোর্ডের প্রস্তাব, মুমিনুল হকরা বাংলাদেশে ৭ দিন কোয়ারেন্টিনে থেকে শ্রীলঙ্কায় গিয়ে বাকি ৭ দিন থাকবেন কোয়ারেন্টিনে। অর্থাৎ, কোনও অবস্থাতেই শ্রীলঙ্কার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন পিরিয়ডের শর্ত থেকে ‍নড়ছে না। তারা অবস্থান না পাল্টানোয় এসএলসি কোয়ারেন্টিন নিয়ে যে পরিকল্পনা করেছে, তাতে এখনও পর্যন্ত সায় দেয়নি লঙ্কান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও বিসিবি। তবে শ্রীলঙ্কান বোর্ড দুই পক্ষকেই মানানোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে খবর ক্রিকইনফোর।
শ্রীলঙ্কা সরকারের ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে বিসিবি ‘না’ করার পর থেকে বৈঠক চলছে লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডে। সমাধানের পথ হিসেবে দুই দেশ মিলিয়ে কোয়ারেন্টিন পর্ব সারার একটা ছক কষেছে তারা। বাংলাদেশ দল ঢাকায় ৭ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষ করে শ্রীলঙ্কায় পৌঁছে বাকি ৭ দিন কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষ করবে। এতে করে ‍নিজ দেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের শর্তও রক্ষা হবে, একই সঙ্গে বাংলাদেশের ৭ দিনের কোয়ারেন্টিনের ইচ্ছাও পূরণ হবে। কিন্তু বিষয়টি মোটেও সহজ ব্যাপার নয়। ঢাকায় ‍মুমিনুলরা ৭ দিনের কোয়ারেন্টিন শেষ করলেও অন্য দেশে ভ্রমণের সময় বায়ো-সিকিউর যে বিষয়টি আছে, সেটি ‍আর রক্ষা হবে না। ‍এখন জটিল এই বিষয়ে বিসিবি কিংবা শ্রীলঙ্কা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সায় দেবে কিনা, সেটাই বড় প্রশ্ন।
যদিও এসএলসি ‍আশাবাদী। ক্রিকইনফোকে ‍লঙ্কান বোর্ডের সহ-সভাপতি রবিন বিক্রমারত্নে বলেছেন, ‘গতকাল (মঙ্গলবার) কোভিড টাস্কের সঙ্গে আমাদের ইতিবাচক বৈঠক হয়েছে। এই সফর হওয়া নিয়ে প্রত্যেকেই সম্মত হয়েছে। তবে আমাদের দেখতে হবে ডাক্তার এ ব্যাপারে কী বলেন।’ করোনাভাইরাস মোকাবিলায় শ্রীলঙ্কা বিশ্বের অন্যতম উদাহরণ। প্রাণঘাতী ভাইরাসে দ্বীপ দেশটিতে মারা গেছে ১৩ জন। একই সঙ্গে এখন স্বাভাবিক জীবনযাপন ফিরেছে সেখানে। তাই বাংলাদেশের সফর নিয়ে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কোয়ারেন্টিন বিষয়ে কোনও ছাড় দিতে চাইছে না। কিন্তু বিসিবি কোয়ারেন্টিন শর্তে রাজি নয়। বিশেষ করে, যেখানে খেলোয়াড়দের হোটেল রুমের বাইরে বের হওয়াতেই কড়া নিষেধাজ্ঞা জারি করে দিয়েছে এসএলসি। বিসিবি মনে করে, টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগে খেলোয়াড়দের এভাবে হোটেল বন্দি করে রাখলে মাঠে স্বাভাভিক খেলা সম্ভব নয়।

ভাগ