গাজায় রাতভর ইসরায়েলের বোমা হামলা

লোকসমাজ ডেস্ক॥ যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্ততায় আমিরাত, বাহরাইনের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরের দিনেই ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বোমা হামলা চালিয়েছে ইসরায়েল। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) রাতে উত্তরাঞ্চলের বেইত লাহিয়া, মধ্যাঞ্চলের ডেইর আল বালাহ, দক্ষিণাঞ্চলের খান ইউনুসের অংশবিশেষে এসব হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ পরিচালিত বার্তা সংস্থা ওয়াফা। এসব হামলায় কেউ হতাহত না হলেও ব্যাপক সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। আর যে কোনও আগ্রাসনের সরাসরি জবাব দেওয়া হবে বলে ইসরায়েলকে সতর্ক করে দিয়েছে গাজার শাসক দল হামাস। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরার প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।
মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতিতে এক সময় দখলদার শক্তি হিসেবে বিবেচিত হওয়া ইসরায়েলের সঙ্গে মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিক চুক্তিতে উপনীত হয়েছে দুই আরব দেশ। ১৫ সেপ্টেম্বর ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার এ চুক্তিতে উপনীত হয় সংযুক্ত আরব আমিরাত ও বাহরাইন। হোয়াইট হাউসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপস্থিতিতে এ চুক্তি সম্পাদিত হয়। এ চুক্তিকে ‘নতুন মধ্যপ্রাচ্যের প্রভাত’ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন ট্রাম্প। তবে ফিলিস্তিনিরা মনে করে এই চুক্তি তাদের পেছন থেকে ছুরিকাঘাত।
দিনে হোয়াইট হাউসে দুই আরব দেশের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করে রাতে গাজায় বোমা হামলা চালায় ইসরায়েলের যুদ্ধবিমান। ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে দাবি করা হয়, রকেট হামলার জবাবে হামাসের দশটি অবস্থানে হামলা চালানো হয়েছে। ইসরায়েলের দাবি মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গাজা উপত্যকা থেকে দুটি রকেট ছোড়া হয়। এর একটি ইসরায়েলের ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা প্রতিহত করতে পারলেও অপরটি উপকূলীয় শহর আসদুদে বিস্ফোরিত হয়ে দুই ব্যক্তি আহত হয়। এদিকে, বুধবার গাজার শাসক দল হামাসের এক বিবৃতিতে ইসরায়েলকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। এতে বলা হয়, ‘আমাদের জনগণ এবং প্রতিরোধ আন্দোলনের স্থানের বিরুদ্ধে যে কোনও আগ্রাসনের মূল্য চুকাতে হবে আর এর জবাব হবে সরাসরি।’

ভাগ