অনলাইনে কেনাকাটায় সতর্ক থাকুন

    লোকসমাজ ডেস্ক॥ মহামারি করোনার কারণে নিজেকে নিরাপদ রাখাসহ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গিয়ে অনলাইনে কেনাকাটার প্রতি মানুষ ঝুকছে বেশি। মানুষ এখন টুকটাক পণ্য থেকে শুরু করে দামি পণ্য পর্যন্ত কেনার আগ্রহ দেখাচ্ছে অনলাইন থেকে।
    এ সুযোগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে অসংখ্য অনলাইন শপিং পেজ রয়েছে, যেগুলো নানা রকমের পণ্যের বিজ্ঞাপন দিয়ে মানুষকে আকৃষ্ট করার চেষ্টা করে থাকে। এসব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আজকাল সবধরনের পণ্যই কেনাবেচা হচ্ছে।
    অনলাইনে শপিং করতে গিয়ে নানাভাবে প্রতারণার শিকার হচ্ছেন অনেকে এমন অভিযোগ পাওয়া যায়। তাদের অভিযোগ এক পণ্য দেখিয়ে নিম্নমানের আরেক পণ্য দেওয়া হয় ডেলিভারির সময়। আবার, কিছু কিছু পেজে অগ্রিম মূল্য পরিশোধের পরেও পণ্য পাওয়া যায় না।
    এছাড়াও ক্যাশ অন ডেলিভারির ক্ষেত্রে ক্রেতাকে নির্দিষ্ট কুরিয়ার সার্ভিস প্রতিষ্ঠানে গিয়ে পণ্যের মূল্য পরিশোধ করে ডেলিভারি নেয়ার জন্য বলা হয়। পণ্য ডেলিভারি নেয়ার পর ক্রেতা দেখতে পান তাকে অন্য কোন পণ্য কিংবা নিম্নমানের পণ্য দেয়া হয়েছে। ক্রেতা পণ্য ফেরত দিতে চাইলে বলা হয়, ‘এ প্যাকেজের সাথে রিটার্ন পলিসি না থাকায় রিটার্ন নেয়া সম্ভব নয়।’ কিংবা এ অবস্থায় বিক্রেতাকে ফেসবুকে নক করতে গিয়ে দেখা যায় তাকে আগেই ব্লক করে দেয়া হয়েছে।
    যেকোনো ধরনের প্রতারণা রোধে বাংলাদেশ পুলিশ সদা সক্রিয়। এ লক্ষ্যে সন্দেহভাজন প্রতারকদের চিহ্নিত করতে এবং সংগঠিত প্রতারণার ক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট প্রতারকদের আইনের আওতায় আনতে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ পুলিশের মাঠপর্যায়ের বিভিন্ন ইউনিট। প্রতিনিয়ত, আইনের আওতায় আনা হচ্ছে এ ধরনের প্রতারকদের। তবে, শুধুমাত্র আইন প্রয়োগ করে এ ধরনের অপরাধ সম্পূর্ণ ভাবে নির্মূল করা খুব সহজ নয়। এক্ষেত্রে, সামাজিক সচেতনতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। তাই, আসুন এ ধরনের প্রতারণা এড়িয়ে কিছু সাধারণ পরামর্শ মেনে চলি।
    অনলাইনে কেনা কাটায় যে বিষয়ে সচেতন থাকতে হবে:
    অনলাইনে কোনো পণ্য কেনার ক্ষেত্রে প্রথমেই যেটি দরকার, তা হচ্ছে আপনাকে সচেতন সচেতন হতে হবে। এ ক্ষেত্রে আপনাকে লক্ষ্য রাখতে হবে-কোনো আকর্ষণীয় বা লোভনীয় বিজ্ঞাপন বা অফার দেখেই হুট করে কিনতে যাওয়া ঠিক নয়রথমেই প্রতিষ্ঠানের নাম-ঠিকানা এবং মালিকের নাম-ঠিকানায় অসামঞ্জস্য আছে কি না, ভালো করে পর্যবেক্ষণ করতে হবে।অনেক অনলাইন প্রতিষ্ঠানও ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে থাকে।ওয়েবসাইটে ট্রেড লাইসেন্সের কপি আছে কি না দেখতে হবে, যদি না থাকে তাহলে ট্রেড লাইসেন্স করা আছে কি না এবং থাকলে তার নিবন্ধন নম্বর কত, তা জেনে নিতে হবে।
    কোনো বিকাশ নম্বরে মূল্য পরিশোধ করতে বললে নম্বরটি একাধিক নম্বর থেকে ফোন করে যাচাই করে নেওয়া ভালো।কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পণ্য দিতে বললে নির্দিষ্টভাবে পণ্য সরবরাহ যেন করা হয় এবং কেনার রসিদ দেওয়া হয়, তা খেয়াল রাখতে হবে।ফেসবুকে কেনাকাটার গ্রুপ বা পেজের রিভিউ দেখে নেওয়া।
    বিশ্বাসযোগ্য ফেসবুক পেজ বা গ্রুপে পণ্য কেনা।
    যেকোনো পণ্য কেনার ক্ষেত্রে আগে পণ্য সরবরাহ করে এবং তা পাওয়ার পর বিক্রয় প্রতিনিধিকে সরাসরি মূল্য পরিশোধ করা যায়, এমন ওয়েবসাইট বা মাধ্যমগুলো নির্ভর করা ভালো।
    -ডিএমপি নিউজ

    ভাগ