‘অন্য সুন্দরী প্রতিযোগিতা থেকে এটা ব্যতিক্রম’

লোকসমাজ ডেস্ক॥ মডেল, লিডারশিপ ট্রেইনার মেঘনা আলম। ওয়ান ইয়াং ওয়ার্ল্ড-এর শুভেচ্ছাদূত হিসেবে নিযুক্ত রয়েছেন। মিস ইউনিভার্স বাংলাদেশ- প্রতিযোগিতায় শীর্ষ ১৮ প্রতিযোগীর মধ্যে ছিলেন। এ ছাড়া তিনি ‘মিস ফ্রিডম অফ দ্য ওয়ার্ল্ড’ এ ‘মিস বাংলাদেশ’ নির্বাচিত হয়েছিলেন। নতুন খবর হলো এবার ‘মিস আর্থ বাংলাদেশ ২০২০’ প্রতিযোগিতার জন্য নির্বাচিত হলেন মেঘনা আলম, যেটি বিশ্বের চারটি আন্তর্জাতিক সৌন্দর্য প্রতিযোগিতার মধ্যে অন্যতম। মেঘনা জানালেন ব্যক্তি ও পেশাগত জীবনের নানা কথা।
আপনার পড়ালেখা?
আমার স্কুল এবং কলেজ দু’টোই ছিল ভিকারুননিসা’র ইংরেজি ভার্সন। এখন নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ করছি।
আপনি তো দেশের বাইরেও ছিলেন?
ব্রাজিল এবং ফিলিপাইনে আমি ‘ট্রেইনার অফ দ্য ট্রেইনারস’ এ অধ্যয়ন করেছি।
আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে লেখা ‘ভলান্টারি ব্লাড ডোনার প্রোভাইডার’ এর মানে কি?
আমি রক্তদাতা এবং গ্রহীতাদের মধ্যে সমন্বয়ের কাজ করি।
এ পর্যন্ত একশ’র বেশি মানুষকে এভাবে সহায়তা করেছি স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে।
মিস আর্থ প্রতিযোগিতায় আপনার আগ্রহ এবং অংশগ্রহণের কারণ?
অন্য সুন্দরী প্রতিযোগিতা থেকে এটা ব্যতিক্রম। এটি পরিবেশ সচেতনতা, সংরক্ষণ এবং সামাজিক দায়বদ্ধতার কথা প্রচার করে।
সেক্ষেত্রে নির্বাচিত হলে আপনার ভূমিকা কি হবে?
বিশ্বে জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে প্রাকৃতিক ভারসাম্য ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এর নেতিবাচক প্রভাবের বেশি শিকার হচ্ছে নারীরা। আমি এই বিষয়টি নিয়ে কাজ করতে চাই।
করোনাকালে আপনাকে ভার্চ্যুয়াল মাধ্যমে অনেক লিডারশিপ ট্রেনিংয়ে তো দেখা গেছে?
হ্যাঁ। এই ট্রেনিং দেয়া থেকে আমার প্রাপ্ত অর্থ দরিদ্র মানুষদের মাঝে বিলিয়ে দিয়েছি।
পাঠকদের উদ্দেশ্যে আপনার কিছু বলার আছে?
মিস আর্থ বাংলাদেশ-ভোটিং প্রক্রিয়ায় আমাকে ভোট দিতে অনুরোধ করছি। আমাকে ভোট দিতে মিস আর্থ বাংলাদেশ পেজে যান এবং আমার পরিচিতি ভিডিওটি লাইক, কমেন্ট এবং শেয়ার করুন।

ভাগ