অভয়নগরে ৩০মণের ‘বাংলার টাইগার’ ১০ লাখ টাকা হাঁকছেন খামারি

স্টাফ রিপোর্টার, অভয়নগর (যশোর) ॥ অভয়নগর উপজেলার সরখোলা-ধোপাদি গ্রামের মাঝ এলাকায় অবস্থিত দারুল আসাদ খামার বাড়িতে ৩০ মণ ওজনের ‘বাংলার টাইগার’ নামের গরুটির দাম হাঁকা হচ্ছে ১০লাখ টাকা। বাংলার টাইগারকে একনজর দেখার জন্য প্রতিদিন দূর-দুরান্ত থেকে মানুষ এসে খামারটিতে ভিড় জমাচ্ছেন। খামারি আসাদুর রহমান জানান, সাড়ে তিন থেকে চার বছর তার খামারে পোষা এই ‘বাংলার টাইগার’ অতি যতেœ লালন পালন করেছেন তিনি। তার ধারণা, গরুটির ওজন ২৮ থেকে ৩০ মণ হবে। তার দাঁতের সংখ্যা ছয়টি। ওই খামারের সবচেয়ে বড় গরু হলো এটি। এ বছরের কুরবানি ঈদে করোনা মহামারির মধ্যেও ‘বাংলার টাইগার’ ১০লাখ টাকা মূল্যে বিক্রি করতে পারবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। তিনি আরও জানান, তার খামারে ১লাখ ৫০হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৯লাখ টাকা মূল্যের কুরবানির গরু রয়েছে আরও ১৬টি। শনিবার সকালে সরেজমিনে খামারে গিয়ে দেখা যায়, খামারের সবচেয়ে বড় গরুটিকে (বাংলার টাইগার) খামার থেকে উঠানে নামাতে গিয়ে ৪-৫জন লোক হিমশিম খাচ্ছেন। এমএম মোশাররফ আলম নামের জনৈক এক ব্যক্তি বাংলার টাইগারকে একনজর দেখার জন্য অনেক দূর থেকে এসেছেন। গরুটিকে দেখতে আসা মোশাররফ আলম বলেন, এত বড় গরু সাধারণত হাটে দেখতে পাওয়া যায় না। তাই বাাংলার টাইগারের খবর শুনে তিনি গরুটিকে দেখতে এসেছেন। ধোপাদি গ্রামের বাসিন্দা, নওয়াপাড়া গরুহাটের ইজারাদার আকতার হোসেন জানান, মহামারি করোনায় এবারের কুরবানির ঈদে গরুর বাজার মন্দা হলেও আসাদ খামার বাড়ির ‘বাংলার টাইগার’ চড়া মূল্যে বিক্রি হবে।

ভাগ