জব্দকরা ৬৫৫ বস্তা গম আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের দেওয়ার নির্দেশ

শেখ মাসুদ হোসেন, সাতক্ষীরা॥ সাতক্ষীরায় পুলিশের অভিযানে জব্দকরা ৬৫৫ বস্তা গম ঘূর্ণিঝড় আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত ৪টি ইউনিয়নে বিতরণের নির্দেশ দিয়েছে সাতক্ষীরার সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালত। রোববার ভার্চুয়াল শুনানি শেষে সোমবার (৬ জুলাই) দুপুরে বিচারক শেখ মফিজুর রহমান এ আদেশ দেন। এর আগে এ মামলার পিপি (দুদক) মোস্তফা আসাদুজ্জামান দিলু জব্দকরা আলামত পচনশীল হওয়ায় এর মধ্য থেকে ৫ কেজি নমুনা স্বরূপ রেখে বাকী সব আলমত বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নিতে আদালতের কাছে আবেদন করেন। আদালত শুনানি শেষে তা ৪ ইউনিয়নে বিতরণের আদেশ দেন।
মামলার নথি ও পিপির আবেদন পর্যালোচনা শেষে আদলতের বিচারক জানতে পারেন যে, গত ২৫ জুন, ২০২০ তারিখে কালিগঞ্জ থেকে ডিবি পুলিশের এস.আই হুসাইন মোস্তফা আলম ৬৫৫ বস্তা গম (৩৯ হাজার ৩০০ কেজি) জব্দ তালিকা মূলে জব্দ করেন। পরবর্তীতে কালিগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন, যার নং-নং ১৬৪৫, তাং- ২৬/৬/২০২০। একই সঙ্গে ফৌজদারি কার্যবিধি বিধি ৫৪ ধারা মোতাবেক আসামি শহীদুল ইসলাম, আব্দুল গণি, লিয়াকত সরদার ও আবু খালেক ঘোরামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে হাজির করেন এবং দুর্নীতি দমন কমিশন গ্রেপ্তার হওয়া আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। জব্দ করা আলামত গম যেহেতু পচনশীল দ্রব্য, সেহেতু তা নষ্ট না করে জনকল্যাণে ব্যবহার করা সমীচীন বলে আবেদনে উল্লেখ করা হয়। বিচারক নথি পর্যালোচনা শেষে সম্প্রতি সুপার সাইক্লোন আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত দুর্গত এলাকা শ্যামনগর উপজেলার কাশিমাড়ী, কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগর, আশাশুনি সদর ও আনুলিয়া ইউনিয়নের মানুষের মাঝে বণ্টনের লক্ষে জেলা পুলিশকে দায়িত্ব দেন। প্রসঙ্গত, গত ২৮ মে ২০২০ তারিখে ৮১৭ বস্তা জব্দকৃত গম আম্পান ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় বিতরণের নির্দেশ দেন সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান। নির্দেশনা মোতাবেক সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুষ্ঠভাবে ওই গম ক্ষস্থিগ্রস্ত এলাকার মানুষের মধ্যে বিতরণ করেন।

ভাগ