নির্বাচনে আছে ইসি

লোকসমাজ ডেস্ক॥ দেশজুড়ে করোনা আতঙ্ক বিরাজ করছে। বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ইতিমধ্যে শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও বন্ধ হয়ে গেছে। এমন পরিস্থিতিতে ঢাকা-১০, বাগেরহাট-৪ ও গাইবান্ধা-৩ আসনের উপনির্বাচন হবে কিনা তা নিয়ে সংশয় ছিলো। তবে জনগণের আতঙ্কের মধ্যেই ভোট করছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ফলে পূর্ব নির্ধারিত তারিখ ২১শে মার্চে এই তিন আসনের উপনির্বাচন হচ্ছে। করোনার কারণে ভোট কেন্দ্রে ভোটাদের উপস্থিতি কেমন হবে তা নিয়ে রয়েছে নানা জল্পনা-কল্পনা। বৃহস্পতিবার বিকালে রাজধানীর নির্বাচন ভবনে ঢাকা-১০ আসনসহ তিনটি সংসদীয় আসনে উপনির্বাচন যথাসময়ে হবে বলে নিশ্চিত করেছেন নির্বাচন কমিশন সচিব মো. আলমগীর।
তিনি জানান, আমরা চিন্তা করেছি খুব ভালো পরিবেশে, করোনার কারণে ভোটার কম হবে এটা ধরেই নেয়া হয়েছে। তাই করোনা সংক্রমণ হওয়ার সম্ভাবনাও কম। তবে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন ও অন্যান্য উপনির্বাচন হবে কিনা সে বিষয়ে পরে সিদ্ধান্ত দেয়া হবে। মো. আলমগীর বলেন, ঢাকা-১০ আসনে নির্বাচন যাতে বন্ধ হয় এ ধরনের কোনো অনুরোধ প্রার্থীদের কাছ থেকে পাওয়া যায়নি। তারা এ বিষয়ে অনেক শ্রম ও টাকা-পয়সা খরচ করেছেন। এখন যদি নির্বাচন বন্ধ করা হয় তাহলে তারা ক্ষতির সম্মুখীন হবেন। নতুন করে ভোটের তারিখ নির্ধারণ করলে তাদের অনেক টাকার অপচয় হবে। এসব কথা চিন্তা করে ভোটের দিন না পেছানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে। এছাড়া দেশে করোনা ভাইরাস এখনো মহামারি আকারে ছড়ায় নি। তাই ভোট হবে। সচিব বলেন, বৈঠকে কমিশন এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছে। এ নির্বাচন বন্ধ করলে সুবিধা কী এবং না করলে কী সুবিধা- এসব বিবেচনা করে সব মিলিয়ে ২১শে মার্চ নির্বাচন হবে বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে ভাইরাসের কারণে প্রত্যেকটি ভোটকেন্দ্রে নিরাপত্তা দিতে সেখানে হ্যান্ড স্যানিটাইজারসহ অন্যান্য সুরক্ষার ব্যবস্থা থাকবে। এই ভোটের কারণে যদি কেউ সংক্রমিত হয় তাহলে এর দায়িত্ব নির্বাচন কমিশন নেবে কিনা এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের যথেষ্ট প্রস্তুতি আছে। প্রতিটি বুথের পাশে ব্যানার থাকবে। কী করণীয় ব্যানারে তার দিকনির্দেশনা থাকবে।

ভাগ