সাগরদাঁড়ীতে সাতদিনব্যাপী মধুমেলার উদ্বোধন

কেশবপুর(যশোর)সংবাদদাতা॥ মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্তের ১৯৯ তম জন্মবার্ষিকীতে সপ্তাহব্যাপী মধুমেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। যশোর জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বুধবার বিকেলে মধুকবির জন্মভূমি সাগরদাঁড়ীতে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে  ফিতা কেটে মধুমেলার উদ্বোধন করেন সাংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ এমপি।
প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, মধুসূদন দত্ত অভুতপূর্ব এক প্রবাদ পুরুষ ছিলেন। তিনি পুরানো ধ্যান ধারনা উপেক্ষা করে বাংলা সাহিত্যের নতুন পথ দেখিয়েছেন। এ কারণে যশোরের সাগরদাঁড়ী ধন্য। আধুনিক বাংলা সাহিত্যে তিনি শুধু দেশ নয়, পৃথিবীর বুকে নাম করেছেন। স্থানীয় সরকার বিভাগের যশোরের উপপরিচালক হুসাইন শওকতের সভাপতিত্বে মধুমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন যশোর -৬ আসনের সংসদ সদস্য শাহীন চাকলাদার, ২ আসনের সংসদ সদস্য ডা.নাসির উদ্দীন, যশোরের পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ারদার, যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন, কেশবপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী রফিকুল ইসলাম, কেশবপুর পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম প্রমুখ। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রহুল আমিন, কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মফিজুর রহমান,  প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সাগরদাঁড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কাজী মোস্তাফিজুল ইসলাম মুক্ত। স্বাগত বক্তব্য দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও মধুমেলা উদ্যাপন কমিটির সদস্য সচিব এম এম আরাফাত হোসেন। উদ্ধোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নাটক ও যাত্রাপালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
উপস্থাপনা করেন সহকারী কমিশনার সৈয়দা তামান্না হোরায়রা ও যশোর জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাধন দাস। এ সময় সাগড়দাঁড়িতে মধুসূদন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপনের দাবিতে সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীকে এম খালিদ এমপিকে স্মারকলিপি প্রদান করেন মধুসূদন সংস্কৃতি বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক আবু বকর সিদ্দিকসহ নেতৃবৃন্দ।