ভারতের প্রথম মুসলিম নারী ফাইটার পাইলট সানিয়া মির্জা

 

লোকসমাজ ডেস্ক ।।ভারতের প্রথম মুসলিম নারী যুদ্ধবিমান চালক হতে যাচ্ছেন দেশটির উত্তর প্রদেশের মেয়ে সানিয়া মির্জা। ন্যাশনাল ডিফেন্স একাডেমির ২০২২ সালের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এ গৌরব যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছেন সানিয়া। ২৭ ডিসেম্বর তিনি পুনেতে এনডিএ একাডেমিতে যোগ দেবেন। ভারতের অন্যতম তারকা টেনিস খেলোয়াড় সানিয়া মির্জার নামে তার নাম। হিন্দি মাধ্যম স্কুলে পড়াশোনা করেই এই সাফল্য অর্জন করেছে সানিয়া। সানিয়া মির্জার এই সাফল্যে শুধু তার বাবা-মা নন, গ্রামবাসীরাও গর্বিত। সানিয়ার বাবা শহিদ আলি একজন টিভি মেকানিক। তিনি বলেন, সানিয়া দেশের প্রথম নারী ফাইটার পাইলট অবনী চতুর্বেদীকে রোল মডেল মনে করেন। শুরু থেকেই তিনি তার মতো হতে চেয়েছিলেন। সানিয়া দেশের দ্বিতীয় কন্যা, যাকে ফাইটার পাইলটের জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে। ন্যাশনাল ডিফেন্স একাডেমির ২০২২ সালের পরীক্ষায় নারীদের জন্য মাত্র দুটি আসন সংরক্ষিত ছিল। প্রথম চেষ্টাতে আসন না পেলেও দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় একটি আসন পেয়ে যায় সানিয়া। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে সানিয়াই হবেন ভারতীয় বিমানবাহিনীর (আইএএফ) প্রথম মুসলমান নারী যুদ্ধবিমান চালক। এনডিএ-র চলতি বছরের পরীক্ষায় পুরুষ ও নারী মিলিয়ে মোট ৪০০টি আসন ছিল। যেখানে নারীদের জন্য ১৯টি আসন ছিল এবং ফাইটার পাইলটদের জন্য ছিল মাত্র দুটি আসন। সানিয়া নিজের যোগ্যতায় এর একটিতে জায়গা করে নিয়েছেন। পরীক্ষায় সামগ্রিক ভাবে ১৪৯তম স্থান পেয়েছেন তিনি। দেহাত কোতোয়ালি থানার অন্তর্গত যশোভার নামের একটি ছোট্ট গ্রামের বাসিন্দা সানিয়া।