চৌগাছায় ইউপি চেয়ারম্যানের ওপর বালি বিক্রেতাদের হামলা

 

স্টাফ রিপোর্টার, চৌগাছা (যশোর) ॥ যশোরের চৌগাছায় কপোতাক্ষ নদের উত্তোলিত বালি বিক্রেতারা ধুলিয়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের ওপর হামলা চালিয়ে তাকে আহত করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যান বাদি হয়ে থানায় মামলা করেছেন। এদিকে সোমবার পুনরায় উপজেলা প্রশাসন ঘটনাস্থল মুকুন্দপুর গ্রামের পাশে কপোতাক্ষ নদের পাড়ে অভিযান চালিয়ে বালি ভর্তি ট্রাক জব্দ করেছে। তবে আটক হয়নি বালি বিক্রির সাথে জড়িতরা। চৌগাছার ওপর দিয়ে প্রবাহমান কপোতাক্ষ নদ খননের বালি বেশ কিছুদিন ধরে একটি সংঘবদ্ধ চক্র বিক্রি করছে। বিষয়টি নিয়ে সোমবার দৈনিক লোকসমাজসহ স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় খবর প্রকাশের পর তেলে বেগুনে জ্বলে ওঠে বালি বিক্রির সাথে জড়িতরা। খবর প্রকাশের পরেও ওই চক্র সোমাবর সকালে পুনরায়র বালি ট্রাকে উঠাতে থাকে। খবর পেয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) গুঞ্জন বিশ্বাস দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছান। সহকারী কমিশনারের উপস্থিতি টের পেয়ে ছিটকে পড়েন বালি বিক্রির হোতারা। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে বালি ভর্তি ট্রাক জব্দ করে প্রশাসন। এদিকে ইউনিয়নের কাবিলপুর গ্রামে একটি জানাজা শেষে ইউপি চেয়ারম্যন এসএম মমিনুর রহমান পরিষদে ফেরার পথে মুকুন্দপুর স্কুল মাঠ সংলগ্নে পৌঁছালে হামলার শিকার হন। বালি বিক্রির হোতা রামভাদ্রপুর গ্রামের গোলাম মোস্তফা, গোলাম মোস্তফার ছেলে ফিরোজ হোসেন, ইদ্রিস আলী, রোকন উদ্দিন, মো. বুলবুলিসহ ১০/১২ জন চেয়ারম্যানের ওপর হামলা চালিয়ে আহত করেন। স্থানীয়রা খবর পেয়ে চেয়ারম্যান এসএম মমিনুর রহমানকে উদ্ধার করে চৌগাছা হাসপাতালে ভর্তি করেন। হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বিকেলে তিনি থানায় হামলাকারীদের নাম উল্লেখ করে মামলা করেন। চেয়ারম্যন এসএম মমিনুর রহমান জানান, ইউনিয়নের কাবিলপুর গ্রামে একটি জানাজার নামাজ শেষ করে পরিষদে ফেরার পথে উল্লেখিত সন্ত্রাসীরা তার গতিরোধ করে হামলা চালিয়ে আহত করে। এ ঘটনায় হামলাকারীদের নামে থানায় মামলা করা হয়েছে। উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) গুঞ্জন বিশ্বাস বলেন, দ্বিতীয় দিনের মত বালি বিক্রির স্থানে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এ সময় আমাদের উপস্থিতি টের পেয়ে ছিটকে যায় বালি বিক্রেতারা। নদ হতে মেইন সড়কে উঠা-নামার জন্যে তারা একটি অস্থায়ী সড়ক তৈরি করে। সেই সড়কটি ধ্বংস করার পাশাপাশি বালি ভর্তি ট্রাক জব্দ করা হয়েছে। অবৈধভাবে নদের বালি বিক্রির সাথে জড়িত সকলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।