পর্দা উঠলো কাতার বিশ্বকাপের

 

 

স্পোর্টস ডেস্ক ॥ শুরু হলো ফুটবল বিশ্বকাপ। জাঁকজমকের মাধ্যমে দোহার আল বায়াত স্টেডিয়ামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। অনুষ্ঠানে দেওয়া হলো ঐক্যের বার্তা, সাম্যের বার্তা। ফুটবলই যে দুনিয়াকে এক করতে পারে বার বার বলা হলো সে কথাও। মাঠে খেলার গড়ানোর আগেই মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ, বিয়ার বিতর্কসহ একাধিক বিষয়ে আলোচনা-সমলোচনা শুরু হয় কাতার বিশ্বকাপ ঘিরে। তবে সেসব অভিযোগে ভুলিয়ে দিতেই পর্দা উঠলো কাতার বিশ্বকাপের। সবকিছু ছাপিয়ে এখন ফুটবল উৎসবে মেতে থাকবে বিশ্ব। পারস্য উপসাগরের তীরে বিশ্বকাপের মহারণে সামিল হবে সবাই। আগামী এক মাস বিশ্বের শতকোটি চোখ থাকবে কাতারে দোহার আল বায়েত স্টেডিয়ামে উদ্বোধীন অনুষ্ঠানে ছিলেন অর্ধলক্ষাধিক দর্শক। বাংলাদেশ সময় রাত আটটার দিকে শুরু হয় অনুষ্ঠান। প্রথা মেনে শুরুতে বিশ্বকাপের ট্রফি মাঠে আনা হয়। অনুষ্ঠান মঞ্চে হাজির হন ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনো ও কাতারের শাসক তামিম বিন হামাদ আল থানি। এরপরই শুরু হয় সংগীতের তালে তালে কাতারের স্থানীয় সংস্কৃতিক সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়া মনোমুগ্ধকর উপস্থাপনা। অনুষ্ঠানপর্ব শুরু হয় মর্গান ফ্রিম্যানের উপস্থাপনায়। মঞ্চে হাজির হয় কাতার বিশ্বকাপের ম্যাসকট লাইব। এরপর প্রফেশনাল ড্যান্সার ও স্বেচ্ছাসেবকদের পারফরম্যান্স শুরু হয়। বিশ্বকাপের গান ড্রিমার্স নিয়ে মঞ্চে আসেন বিটিএস-এর গায়ক জুং কুক। সঙ্গে ছিলেন কাতারি গায়ক ফাহাদ আল কুবাসি। জিং কুকের গান শেষে সংক্ষিপ্ত ভাষণ দেন কাতারের আমির শেখ হামিম বিন হামাদ আল থানি। সবাইকে স্বাগত ও শুভ কামনা জানিয়ে ভাষণ শেষ করেন তিনি। এর মধ্যে দিয়েই শেষ হয় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের। পর্দা ওঠে ‘গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’ বিশ্বকাপের।