বাঘারপাড়ায় আবারো ডাকাতি

স্টাফ রিপোর্টার॥ এক মাসের ব্যবধানে বাঘারপাড়ার পল্লীতে আবারো ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার দিবাগত রাতে উপজেলার দক্ষিণ শ্রীরামপুর গ্রামে এক সেনা সদস্যের বাড়িতে এ ডাকাতি সংঘঠিত হয়। ডাকাত দল এ সময় এক নারীকে বেদম মারপির ও তার শিশু সন্তানকে জিম্মি করে বাড়িতে গচ্ছিত নগদ টাকা, স্বর্ন ও রূপার অলংকার লুট করে। তবে বাঘারপাড়া থানা পুলিশ এ ঘটনাটিকে ডাকাতি নয় বলে দাবি করেছেন। স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, এ দিন রাত আনুমানিক তিনটার দিকে যশোর-নড়াইল সংলগ্ন দক্ষিণ শ্রীরামপুর গ্রামের সেনা সদস্য জামাল হোসেনের বাড়িতে ডাকাতি হয়। জামাল হোসেন তার পরিবার নিয়ে কর্মস্থলে থাকেন। বাড়িতে থাকেন জামালের বৃদ্ধা বোন ও ভাগ্নি। ভাগ্নির চার বছরের একটি শিশু সন্তান রয়েছে।  জামালের ভাগ্নি সুইটি বেগম বলেন, রাত অনুমানিক তিনটার দিকে দরজার তালা ভেঙে ১৫/১৬ জন এক দল ডাকাত তাদের ঘরে ডোকে। ডাকাতদের সকলের গায়ে কালো জ্যাকেট ও মুখে মুখোশ ছিলো। তারা প্রথমে পরিচয় দেয় তারা পার্টির লোক। এ সময় তিনি (সুইটি বেগম) চিৎকার দিলে ডাকাতরা তাকে বেধড়ক মারপিট করে তার শিশু সন্তানকে হত্যার হুমকি দেয়। নিরুপায় সুইটি এ সময় ডাকাত দলের হাতে তার গচ্ছিত নগদ ৫৪ হাজার টাকা, তিন ভরি স্বর্র্নের ও ১৪/১৫ ভরি রূপার গহনা তুলে দেন।
গতকাল দুপুরে বাঘারপাড়া থানা পুলিশ ওই বাড়িতে যায়। পুলিশে এসআই রাজ কিশোর ও এসআই সজল এসময় উপস্থিত ছিলেন। এ বিষয়ে এসআই সজল জানিয়েছেন, ঘটনাটিকে ডাকাতি বলা যাবে না। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ওই মহিলাকে কেউ মারপিট করেছে। একই সাথে হাতের নাগালে যা পেয়েছে তা নিয়ে গেছে। থানায় এ বিষয়ে তারা একটি অভিযোগ দিয়েছে।
উল্লেখ্য একই এলাকায় গত ১৬ অক্টোবর আদমপুরের দুই বাড়িতে ও ১৭ অক্টোবর করিমপুর গ্রামের এক বাড়িতে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘটিত হয়।