ইরানে বিক্ষোভকারী ও সরকারি বাহিনীর ওপর বন্দুক হামলা

লোকসমাজ ডেস্ক ।। বাধ্যতামূলক হিজাব আইন বাতিল ও নারীর পোশাকের স্বাধীনতার দাবিতে ইরানে বিক্ষোভরত জনতা এবং সরকারের স্বেচ্ছাসেবী আধাসামিরক বাহিনী বাসিজ মিলিশিয়াদের ওপর অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের পৃথক দুটি হামলায় অন্তত ৯ জন নিহত হয়েছেন। ইরানের দক্ষিণপশ্চিমাঞ্চলীয় খুজেস্তান প্রদেশ ও ইসফাহান শহরে বুধবার এই দুই হামলার ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে নারী এবং শিশুও রয়েছে। দেশটির রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যমের খবরে এই হামলাকে ‘সন্ত্রাসী হামলা’ বলে অভিহিত করা হয়েছে। দেশটির সরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে বলা হয়েছে, খুজেস্তানের ইজেহ শহরের একটি বাজারে বন্দুক বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলায় পাঁচজন নিহত ও আরও ১৫ জন আহত হয়েছেন। একটি গাড়িতে করে দুই বন্দুকধারী বাজারে পৌঁছে লোকজনকে লক্ষ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি চালিয়েছে। হামলায় জড়িত সন্দেহে ইতিমধ্যে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। বিক্ষোভকারীদের ওপর ওই হামলার চার ঘণ্টা পর ইরানের তৃতীয় বৃহত্তম শহর ইসফাহানে স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র থেকে বাসিজ মিলিশিয়া গোষ্ঠীর সদস্যদের ওপর নির্বিচারে গুলি চালানো হয়েছে। এতে বাসিজ মিলিশিয়া গোষ্ঠীর দুই সদস্য নিহত ও আরও দুজন আহত হয়েছেন। সঠিক নিয়মে হিজাব না পরায় ইরানের নৈতিকতা পুলিশের হাতে গ্রেফতারের পর গত ১৬ সেপ্টেম্বর মাহসা আমিনি নামে এক তরুণী মারা যান। এই ঘটনার পর থেকে গত দুই মাস ধরে দেশটিতে বিক্ষোভ চলছে।  বৃহস্পতিবার ৬১তম দিনের মতো বিক্ষোভ হয়েছে। ইরানের জাতিগত আরব সংখ্যালঘুদের বেশিরভাগ খুজেস্তানে বসবাস করেন। সেখানকার সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর সদস্যরাও মাহসা আমিনি হত্যাকান্ডের ঘটনায় শুরু হওয়া বিক্ষোভে যোগ দিয়েছেন।