টাইগারদের বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের প্রথম সিরিজ জয়

লোকসমাজ ডেস্ক॥ খেলা শেষ হতে তখনও নয় বল বাকি। ধুন্ধুমার ব্যাট করতে থাকা শেখ মাহেদীর ক্যাচ ধরলেন সিকান্দার রাজা। ক্যাচ ধরে সীমানায় ফিল্ডিংয়ে থাকা রাজা দর্শকদের সঙ্গে উল্লাসে মেতে ওঠেন নিজেও। তার উল্লাসই বলে দিচ্ছিল দিনটা তাদের। শেষ পর্যন্ত হাসিটা ধরে রাখতে পারল জিম্বাবুয়ে। ১০ রানের জয় নিয়ে বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি প্রথমবার সিরিজ জিতল তারা।
রায়ান বার্লের অর্ধশতক ও লুক জঙ্গুয়ের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে তারা ১৫৭ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে বাংলাদেশকে। বর্তমান সময়ের টি-টোয়েন্টির বিচারে যা খুব বড় সংগ্রহ নয়। তবু লক্ষ্যটা ছুঁতে পারল না টাইগাররা। শুরু থেকে চাপে পড়া বাংলাদেশ শেষ পর্যন্ত পরাজয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল।
ব্যাটিং ইনিংসের শুরুটা দারুণ করেছিলেন। প্রথম ওভারে আসা নয় রানের পুরোটা আসে লিটনের ব্যাট থেকে। দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলে চার হাঁকালেও নিয়াউচির পরের বলেই তার হাতে সোজা ক্যাচ। ১৩ রান করেই ফিরে যেতে হয় লিটনকে।
মুনিম শাহরিয়ারের ব্যর্থতায় একাদশে সুযোগ হয়েছিল পারভেজ হোসেন ইমনের। নেমেছিলেন লিটন দাসের সঙ্গে ওপেনিংয়ে। তবে আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি। ফিরে গেছেন মাত্র দু রান করেই। ক্রিজে টিকেছিলেন ছয় বল। নিয়াউচির বলটা স্লটে পেয়েছিলেন, তবে তুলে মারতে গিয়ে মিড অনে ধরা পড়লেন।
দ্রুত দুই উইকেট হারানো বাংলাদেশ চাপে পড়ে যায়। বিজয় শান্তরা চেষ্টা করলেও বেশি কিছু করতে পারেননি। একে একে ফিরে যান দুজনই। মাঝে রিয়াদ ও আফিফ মিলে গড়েন ৩৯ রানের জুটি। তবে ৯৯ রানে রিয়াদের বিদায়ে সেটাও ভাঙে। ২৭ বলে ২৭ রান করে ফিরে যাওয়া সদ্য সাবেক অধিনায়কের ব্যাট থেকে আসে মাত্র একটি চার। তারপর শেখ মাহেদীর চার-ছক্কা আশা জাগিয়েছিল। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। আফিফ শেষ পর্যন্ত অপরাজিত ছিলেন ৩৯ রানে। কিন্তু হার নিয়ে মাঠ ছেড়ে আসতে হয়।
জিম্বাবুয়ের হয়ে নিয়াউচি তিনটি, ইভানস দুটি এবং মেধেভেরে, উইলিয়ামস ও জঙ্গুয়ে নেন একটি করে উইকেট।

Lab Scan
ভাগ