চুড়ামনকাটিতে বাড়ি নির্মাণে চাঁদা দাবির অভিযোগ

 

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর সদর উপজেলার চুড়ামনকাটি দাসপাড়ায় নতুন বাড়ি নির্মাণে চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় বুধবার মানিক দাস নামে এক ব্যক্তি ৮ জনকে আসামি করে আদালতে মামলা করেছেন। তিনি একই এলাকার মৃত নিমাই দাসের ছেলে। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মঞ্জুরুল ইসলাম অভিযোগের তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য সিআইডি পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন।
আসামিরা হলেন, চুড়ামনকাটি দাসপাড়ার অনিল দাসের ছেলে রতন দাস ও অসিম দাস, মৃত তারাপদ দাসের ছেলে মন্টু ওরফে দুধ কুমার দাস, তার ছেলে তিতাস দাস, রতন দাসের ছেলে আশিক দাস, অসিম দাসের ছেলে হিরামন দাস, মৃত জিতেন দাসের ছেলে উত্তম দাস ও মৃত দুলাল দাসের ছেলে রতন দাস।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, মানিক দাস নতুন বাড়ির নির্মাণের জন্য ইট ও বালু ক্রয় করে এনেছেন। তিনি নতুন বাড়ি নির্মাণ করবেন এ খবর জানতে পেরে আসামিরা তার ওপর ক্ষুব্ধ হন। গত ১০ মার্চ রাত ১০টার দিকে আসামিরা তার বাড়িতে গিয়ে মানিক দাসের কাছে ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। তারা এ সময় তাকে হুমকি দিয়ে বলেন যে, চাঁদার টাকা না দিলে বাড়ি নির্মাণ করতে দেয়া হবেনা। কিন্তু তিনি চাঁদা না দেওয়ায় গত ১৭ এপ্রিল রাত সাড়ে ৭টার দিকে ফের তার বাড়িতে গিয়ে চড়াও হন এবং চাঁদার ১ লাখ টাকা দিতে বলেন। রাজী না হওয়ায় তারা মানিক দাসকে পিটিয়ে জখম করেন। তখন স্বামীকে রক্ষা করতে মানিক দাসের স্ত্রী গিতা রানী দাস ও মা সাগরিকা দাস এগিয়ে এলে আসামিরা তাদেরকেও মারধর করেন। এরপর আসামিরা মানিক দাসের টিনের ঘর কুপিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত করে। পরে তারা হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যায়। এ ঘটনায় মানিক দাস কোতয়ালি থানায় অভিযোগ দাখিল করলেও পুলিশ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। যে কারণে বাধ্য হয়ে মানিক দাস আদালতের আশ্রয় নিয়েছেন।

Lab Scan
ভাগ