যশোরে জিয়া পরিষদের সেমিনারে ড. এমতাজ হোসেন সততা দেশপ্রেমে ইতিহাসে অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে আছেন জিয়াউর রহমান

 

মাসুদ রানা বাবু ॥ যশোরে জিয়া পরিষদের কেন্দ্রীয় মহাসচিব প্রফেসর ড. এমতাজ হোসেন বলেছেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান একজন আপদমস্তক সৎ রাষ্ট্রনায়ক ও রাজনীতিক ছিলেন। যার সততা দেশ প্রেম ইতিহাসে অনন্য দৃষ্টান্ত হয়ে আছে। আজ পর্যন্ত কেউ তার সততা নিয়ে কথা বলার দৃষ্টান্ত দেখাতে পারেনি। কেবলমাত্র তথাকথিত বুদ্ধিজীবীরা তাদের বুদ্ধি বিক্রি করে স্বাধীনতা যুদ্ধের এই মহানয়কের বিরুদ্ধে প্রচার চালাচ্ছে। তাদের কাজই হলো এই তাবেদার সরকারের কাছ থেকে অবৈধ সুযোগ সুবিধা নিয়ে দেশের প্রকৃত ইতিহাস বিক্রি করা। মহান স্বাধীনতার ঘোষক ,সাবেক রাষ্ট্রপতি, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়াউর রহমানের ৪১ তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল বুধবার জিয়া পরিষদ যশোর জেলা শাখা আয়োজিত সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।
প্রেসক্লাব যশোরে অডিটোারিয়ামে অনুষ্ঠিত সেমিনারে প্রফেসর ড. এমতাজ হোসেন আরও বলেন, ইতিহাস সত্য কথা বলে। ইতিহাস তার নিজের কথা বলে, মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে শহীদ জিয়ার ভুমিকা কি ছিলো, সেটি ইতিহাস সাক্ষ্য দেয়। ইতিহাস বলে তিনি দেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ছিলেন। এটি তার অর্জন, কারও দয়া নয়। মহান স্বাধীনতা সংগ্রামে শহীদ জিয়ার ভুমিকা নিয়ে যারা প্রশ্ন তোলে, সেদিন তাদের কি ভূমিকা ছিল তা’ ইতিহাসের সাক্ষ্য দেয়। সেদিন তারা রাতের আধাঁরে পালিয়ে নিজের জীবন রক্ষা করেছিল। আর শহীদ জিয়াউর রহমান নিজের ও পরিবারের জীবন চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলে দেশ মাতৃকার টানে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়ে অস্ত্রে কাঁধে নিয়ে রণাঙ্গনে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। তিনি বলেন,আওয়ামীলীগ জিয়াউর রহমানের সততা দেশ প্রেম সর্বোপরি তার জনপ্রিয়তাকে ভয় পায়। যে কারনে তারা উদ্বিগ্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে নিয়ে কথায় কথায় তার বিরুদ্ধে বিষোদগার করে। কিন্তু জিয়াউর রহমানের আদর্শের একজন সৈনিক বেঁচে থাকতে সেটি কোন দিনই সহ্য করবে না।
সেমিনারে প্রধান বক্তার বক্তৃতায় বিএনপির খুলনা বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেন, সততা আর দেশ প্রেম ছিল জিয়াউর রহমানের মূল শক্তি। তিনি একমাত্র স্বাধীন সার্বভেীম ভুখন্ডের স্বপ্ন দেখেছিলেন। সেদিন দেশ ও জাতির ক্রান্তিকালে যখন রাজনৈতিক নেতৃত্ব সাহস দেখাতে পারে নি । ঠিক তখন জিয়াউর রহমান সেই সাহস দেখিয়েছেন। ইতিহাসের শ্বাশত সত্য অস্বীকার করার কোন সুযোগ নেই। তার অবিস্মরনীয় সকল কর্মকান্ড ইতিহাসের পাতায় কালজয়ী সাক্ষী হয়ে আছে। আজকে দেশের যত অর্জন তার সূচনা হয়েছে শহীদ জিয়াউর রহমানের হাতে।
বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগম বলেন, কতৃত্ববাদী শাসক গোষ্ঠী জিয়াউর রহমানের সকল কৃিতত্ব আত্মসাৎ করার জন্যে ইতিহাস বিকৃত করছে। তারা নতুন প্রজন্মকে সঠিক ইতিহাস থেকে দুরে রাখতে চায়। যে কারনে তারা বিভিন্ন ভাবে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে। কিন্তু এসব করে কোন লাভ হবে না। ইতিহাস যোগ্য ব্যক্তির মর্যাদা দিতে জানে।
সেমিনারে জেলা জিয়া পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাড. কাজী মুনিরুল হুদার সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য অ্যাড. নজরুল ইসলাম, জিয়া পরিষদের খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ূন কবির, কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব প্রকেীশলী শরিফুজ্জামান খাঁন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য অ্যাড. জাফর সাদিক,জেলা জিয়া পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক আজিজুল ইসলাম প্রমুখ। সেমিনার পরিচালনা করেন, জিয়া পরিষদের জেলা সদস্য সচিব অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম ও সদস্য আরিফ হোসেন লতা।

Lab Scan
ভাগ