মোরেলগঞ্জের রাস্তা নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ ঠিকাদারকে কারণ দর্শানো নোটিশ

 

মোরেলগঞ্জ সংবাদদাতা॥ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার বহরবুনিয়া ইউনিয়নের একটি গ্রামে রাস্তার কাজে ব্যাপক অনিয়ম হওয়ায় এলাকাবাসী ক্ষুব্ধ। দুর্যোগ ব্যাবস্থাপনা অধিদপ্তরের হেরিং বোনবন্ড(এইচবিবি) রাস্তায় ইট সোলিংয়ে নিম্নমানের কাজ করা হচ্ছে। তারপরও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান যেনতেন ভাবে রাস্তার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। এলাকাবাসীর চাপের মুখে গত ২৫ মে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. রোকন উজ্জামান।
সূত্র মতে, দুর্যোগ ব্যাবস্থাপনা অধিদপ্তরের হেরিং বোন বন্ড(এইচবিবি) শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের অধীনে বহরবুনিয়া ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের কালিবাড়ি স্লুইসগেইট থেকে কাটাখালের পূর্ব পাশ হয়ে নদী পর্যন্ত ১৫০০ মিটার এইচ বিবি রাস্তা নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে। এটির ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৮৮ লক্ষ টাকা। কাজটি করছেন মোরেলগঞ্জ উপজেলার মের্সাস রাহাত এন্টারপ্রাইজ।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, রাস্তায় ইট সোলিং কাজে উপরিভাগে ২ নম্বর ইট ব্যবহার করা হচ্ছে এবং নিচের ভাগে ব্যবহার করা হচ্ছে অধিকাংশ ৩ নম্বর বা নাম্বার বিহীন ইট। নিচের ভাগে ১-২ ইঞ্চি ফাঁকা রেখে ইট বিছানো হচ্ছে। রাস্তায় পানি দেওয়া হয়নি। এক প্রকার দায়সারা ভাবে কাজ করা হচ্ছে। অভিযোগের পরও আবারও নিম্নমানের ইট রাস্তায় ফেলায় এলাকাবাসীর প্রতিবাদের মুখে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান মেসার্স রাহাত এন্টারপ্রাইজ কিছু ইট সরিয়ে নিয়েছে।
ওই গ্রামের বাসিন্দা আলী আহমেদ বলেন, তাদের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশিত রাস্তায় ইট সোলিং কাজে এতটাই অনিয়ম করা হচ্ছে যা ভাষায় প্রকাশ করার মতো না। তিনি জানান, তারা এই প্রথমবারের মত ইটের রাস্তা পেয়েছেন, এভাবে এই রাস্তাটি নির্মাণ করা হলে এক বছরেই রাস্তা নষ্ট হয়ে যাবে। ফলে তাদের চলাচলের জন্যে আবার দুর্ভোগ পোহাতে হবে। একই এলাকার ইউপি সদস্য হেমায়েত হাওলাদার, বিপ্লব তালুকদার, সবুজ হাওলাদার,আলামিনসহ অনেকে বলেন, রাস্তার কাজ সঠিক ভাবে হচ্ছে না। স্থানীয় অনেকেই অভিযোগ করেন ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে সখ্যতা থাকায় ঠিকাদর পার পেয়ে যাচ্ছে। তার আরো জানান, চেয়ারম্যান নিজে কখনো এই রাস্তা পরিদর্শনে যাননি।
স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান টি এম রিপন হোসেন জানান, বহরবুনিয়া ইউনিয়নের মানুষ অবহেলিত,নদী ভাঙনসহ নানা প্রতিকূলতা মোকাবেলা করে টিকে আছে এখানকার মানুষ, দীর্ঘদিন পর রাস্তা পাচ্ছে। তিনি আশ্বাস দেন আগামীতে রাস্তা যাতে সঠিকভাবে হয় তা তিনি খোঁজ নেবেন।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. রোকনউজ্জামান বলেন, গতকাল ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে নির্মাণাধীন কাজে বিভিন্ন অনিয়ম দেখা গেছে। সেখানে নিম্নমানের ইট, সোল্ডারে মাটির পরিমাণ কম, রিং পাইপ স্থাপন করা হয় নি, ড্রাম প্যালাসডিং করা হয়নি এছাড়াও নানা অনিয়ম রয়েছে।
তিনি বলেন, কাজে বিভিন্ন ধরনের অনিয়মের জন্য ঠিকাদরী প্রতিষ্ঠান মেসার্স রাহাত এন্টারপ্রাইজকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে।
বাগেরহাট জেলা ত্রাণ ও পুর্নবাসন কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন বহরবুনিয়া ইউনিয়নের রাস্তার কাজে কোনো অনিয়ম হতে দেওয়া হবে না। তিনি নিজেই কাজ পরিদর্শনে যাবেন জানিয়ে বলেন অভিযোগ পেলে তা আমলে নিয়ে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Lab Scan
ভাগ