শালিখায় প্রাণিসম্পদ অফিসে পদশূন্যতায় কাজে ধীরগতি

 

শালিখা (মাগুরা) সংবাদদাতা ॥ মাগুরার শালিখা উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তর ও ভেটেরিনারি হাসপাতালে উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও উপজেলা ভেটেরিনারি সার্জন কর্মকর্তা না থাকায় ধীরগতিতে চলছে অফিসের কার্যক্রম। এছাড়া অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা সময়মতো অফিসে আসছেন না। ফলে উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম থেকে আসা পশুখামারি ও সেবা নিতে আসা মানুষজন পড়ছেন চরম বিপাকে। সোমবার উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে গিয়ে এমন চিত্র লক্ষ্য করা যায়।
জানা গেছে, চলতি বছরের ২ ফেব্রুয়ারি উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আনিসুল হকের পদোন্নতিজনিত বদলির কারণে এই পদটি শূন্য হয়। বর্তমানে পদটিতে অতিরিক্ত কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন মাগুরা জেলার শ্রীপুর উপজেলার প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মদন কুমার রায়। তিনি বলেন, শালিখা উপজেলার কয়েকটি দপ্তরের মধ্যে পশুসম্পদ একটি গুরুত্বপূর্ণ দপ্তর। এখানে পদ শূন্য হওয়ার পর থেকে তিনি অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি বলেন, জরুরি মুহূর্তে শালিখা উপজেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ফাইলগুলো সই করা, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি নেওয়া এবং নানা প্রয়োজনে দপ্তরটির লোকদের কষ্ট করে যেতে হয় শ্রীপুর উপজেলা প্রাণিসম্পদ অফিসে, যা মোটেও সমীচীন নয়। এছাড়া গত তিন বছর আগে উপজেলা ভেটেরিনারি সার্জন কর্মকর্তা মাসুমা খাতুনের বদলিজনিত কারণে শালিখা উপজেলার ভেটেরিনারি সার্জনের পদ শূন্য হয়, যেখানে নতুন করে এখনো কাউকে পদায়ন করা হয়নি। শালিখা উপজেলা পশুসম্পদ অফিসে সেবা নিতে আসা কয়েকজন লোকের সাথে কথা বলে জানা যায়, দপ্তরটিতে প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ও ভেটেরিনারি সার্জন কর্মকর্তা না থাকায় পশু চিকিৎসা ও লালন-পালনের বিষয়ে পরিপূর্ণ সেবা পাচ্ছেন না তারা।
এ ব্যাপারে মাগুরা জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা মো. হাদিউজ্জামান জানান, বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তারা বলেছেন পর্যাপ্ত লোকবল না থাকায় এমন সমস্যা হচ্ছে। তবে নতুন করে লোকবল নিয়োগ দিলে এ সমস্যার সমাধান হবে।

 

Lab Scan
ভাগ