চৌগাছার আব্দুল হামিদ দুই পায়ে হাঁটছেন ৫১ বছর পর

এম এ রহিম, চৌগাছা (যশোর) ॥ ৫১ বছর পর আব্দুল হামিদ পায়ে হাঁটছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার যশোরের চৌগাছার আব্দুল হামিদের (৭০) ডান পা কৃত্রিমভাবে সংযোজন করা হয়েছে। এর ফলে ৫১ বছর পর তিনি নিজ পায়ে হাঁটতে পারছেন। মহান মুক্তিযুদ্ধের ৫১তম বছর পর দুই পায়ে হ্াঁটছেন। শত্রু সেনাদের পুঁতে রাখা মাইন বিস্ফোরণে তিনি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে ডানপায়ের হাঁটুর নিচ অংশ হারান। এর পর থেকে তিনি ক্রাচে ভর দিয়ে চলেন। ঢাকাস্থ চৌগাছা সমিতি ও রোটারি ক্লাব অব খুলনা আর্টিফিশিয়াল লিম্ব‘র পক্ষ থেকে তার এই কৃত্রিম পা সংযোজন করে দেয়া হয়। আবদুল হামিদ উপজেলার ধুলিয়ানি ইউনিয়নের ফতেপুর গ্রামের বাসিন্দা।
জানা গেছে, সংস্থার পক্ষ থেকে তার একটি কৃত্রিম পা উপহার দেয়া হয়। কৃত্রিম পা টি তার শরীরে সংযোজন করা হয়েছে। আবদুল হামিদের কৃত্রিম পা সংযোজনে সহযোগিতা করেছেন উপজেলার আন্দুলিয়া গ্রামের সন্তান ও খুলনা শহরের ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের পিন্টু।
গত ৪ মে চৌগাছা উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে ঢাকাস্থ চৌগাছা সমিতির পক্ষ থেকে স্বাভাবিক চলাচলে অক্ষম ১০৫ ব্যক্তিকে হুইল চেয়ার প্রদান করা হয়। ওই অনুষ্ঠানে পরিচয় ও কথা হয় আব্দুল হামিদের সঙ্গে। এরপর তার কৃত্রিম পা সংযোজনে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছিলেন আব্দুল কাদের পিন্টু। সে প্রেক্ষিতে রোটারি ক্লাব অব খুলনা আর্টিফিশিয়াল লিম্ব প্রজেক্টের আওতায় এই পা সংযোজন করে দেয়।
কৃত্রিম পা সংযোজন করার পর আব্দুল হামিদ রোটারি ক্লাব অব খুলনা এবং ঢাকাস্থ চৌগাছা সমিতির প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, ‘জীবনের শেষ দিকে এসে পা ফিরে পেয়ে খুবই আনন্দিত’।

 

 

Lab Scan
ভাগ