সব রেকর্ড ভাঙলো ম্যারাডোনার ঐতিহাসিক জার্সি

স্পোর্টস ডেস্ক॥ আলোচনা-সমালোচনায় ১৯৮৬ বিশ্বকাপটি হয়ে আছে ম্যারাডোনার। আর্জেন্টিনার শিরোপা জেতা আসরটিতে ৫ গোল করে সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারটি জিতেছিলেন। ‘হ্যান্ড অব গড’ নামে পরিচিত হাত দিয়ে গোল করার ঐতিহাসিক ঘটনাটিও এই বিশ্বকাপেরই। কোয়ার্টার ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে করা ওই গোলটি আজও চায়ের টেবিলে ঝড় তুলে। একই ম্যাচে করেছিলেন ‘গোল অব দ্য সেঞ্চুরি’ও!
সেই ম্যাচটিও আবার আলোচনায় এই ম্যারাডোনার কল্যাণে। সেদিন যে জার্সিটি পড়ে আর্জেন্টাইন ফুটবল ঈশ্বর মাঠে নেমেছিলেন। সেই পোশাকটি উঠানো হয়েছিল নিলামে। আর তা বিক্রি হয়েছে ইতিহাসের সব রেকর্ড ভেঙে। অনলাইন নিলামে জার্সিটি বিক্রি হয়েছে ৭১ লাখ পাউন্ডে। বাংলাদেশি টাকায় যার মূল্য ৭৬ কোটি ৫৫ লাখ ৯৯ হাজার টাকার কিছু বেশি।
ইতিহাসে কোনও ক্রীড়া স্মারক এত উচ্চমূল্যে বিক্রির নজির এটাই প্রথম। সর্বশেষ ২০১৯ সালে বেসবল লিজেন্ড বেব রুথের জার্সিটি বিক্রি হয়েছিল ৫৬ লাখ ডলারে।
জার্সির নিলামকারী প্রতিষ্ঠান ছিল সদবি। তারা যেমনটা প্রত্যাশা করেছিল, তার চেয়েও বেশি মূল্যে জার্সিটি বিক্রি হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছিল ৪০ থেকে ৬০ লাখ পাউন্ড।
জার্সিটি নিলামে তুলেছেন ইংল্যান্ডের সাবেক মিডফিল্ডার স্টিভ হজ। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনার কাছে ২-১ গোলে কোয়ার্টার ফাইনালে হারের ম্যারাডোনার সঙ্গে জার্সি অদলবদল করেছিলেন তিনি। সেই ঘটনার ৩৬ বছর পর স্মারকটি নিলামে তোলার ঘোষণা দেন।
অবশ্য ২০২০ সালের নভেম্বরে ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর পরই ঐতিহাসিক ওই জার্সি বিক্রির কথা উঠেছিল। সেই গুজবে লোকজন হজের বাড়িতে হানা দিচ্ছিল প্রতিনিয়ত। কিন্তু হজ সাফ জানিয়ে দিয়েছিলেন, এই জার্সি বিক্রির জন্য নয়। সে সময় তিনি বলেছিলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়েছে বিষয়টা পুরোপুরি অসম্মানজনক এবং ভুল। এটা বিক্রির জন্য নয়। আমি তার চেষ্টাও করছি না।’

Lab Scan
ভাগ