মামলায় জর্জরিত এক বিদ্যালয়!

ওসমান গণি, রাজগঞ্জ (যশোর)॥ যশোরের মণিরামপুর উপজেলার রাজগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়টিতে ঝুলছে ১৪টি মামলা। যা নিয়ে ক্ষুব্ধ খোদ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ। তারা বলছেন একসাথে এতগুলো মামলা চলমান থাকায় ব্যাহত হচ্ছে বিদ্যালয়ের দৈনন্দিন পাঠদান কার্যক্রম। ফলে শিক্ষাদানের একটি মূল্যবান সময় চলে যাচ্ছে শিক্ষক কর্মচারীদের মামলার হাজিরা দিতে গিয়ে।
সূত্রমতে, রাজগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ২০১৮ সালে পরিচালনা পরিষদ ভেঙে দেয় জেলা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এরপর ২০১৯ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি শিক্ষক আব্দুল লতিফকে সভাপতি করে ৪ সদস্যের নতুন অ্যাডহক কমিটি নিয়োগ দেয় জেলা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। রাজগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল লতিফ দায়িত্ব গ্রহণের পর আগের সভাপতির বন্দোবস্ত দেওয়া স্কুলের জমি থেকে সকল স্থাপনা উচ্ছেদ করেন। সেই সাথে উচ্ছেদ করেন স্কুলের খেলার মাঠে গড়ে ওঠা সেই গরু ছাগলের হাট ও কাঁচাবাজার। হাট ও বাজারের ১৪ ব্যক্তি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে বিবাদী করে আদালতে ১৪টি মামলা দায়ের করেন। যা বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মাছুদ কামাল তুষার বলেন, একসাথে বিদ্যালয়ের নামে এতগুলো মামলা চলমান থাকায় ব্যাহত হচ্ছে বিদ্যালয়ের দৈনন্দিন পাঠদান কার্যক্রম। ফলে শিক্ষা দানের একটি মূল্যবান সময় চলে যাচ্ছে শিক্ষক কর্মচারীদের মামলার হাজিরা দিতে গিয়ে। বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি আব্দুল লতিফ বলেন, আগে যে অনিয়ম দুর্নীতি হয়েছে তার কোনো দায়দায়িত্ব রাজগঞ্জ মাধ্যমিক বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বহন করবে না।

Lab Scan
ভাগ