রাজপথ রঞ্জিত করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনতে হবে: সিলেটে বিএনপি’র সমাবেশে টুকু

লোকসমাজ ডেস্ক॥বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলেছেন- খালেদা জিয়া মানুষের কথা বলেন বলেই তাকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে। এই অবস্থায় আর বসে থাকার সুযোগ নেই। রাজপথকে প্রকম্পিত করে নেত্রীকে মুক্ত করতে হবে। গুলি খেতে হবে। রাজপথ রঞ্জিত করতে হবে। খালেদা জিয়া মুক্তির আন্দোলনে যদি আমার দেশের মানুষের গুলি আমার শরীরে লাগে তবে আমি গর্বিত শহীদ। প্রতীকী নয়, আসল কাফনের কাপড় পরে জেলের তালা ভেঙে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে এবং দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে। তিনি গতকাল বিকালে সিলেটের টুকেরবাজারে জেলা বিএনপি আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাওয়ার সুযোগ প্রদানের দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছিলো। সমাবেশে প্রধান অতিথি আরও বলেন- খালেদা জিয়া জনগণের ভাষা বুঝতে পেরে সংসদীয় গণতন্ত্র উপহার দিয়েছেন। তিনি কেয়ারটেকার সরকার দিয়েছিলেন এবং এর পরের নির্বাচনে পরাজিত হয়ে তিনি বিরোধীদলীয় নেত্রী হয়েছিলেন। একেই বলে গণতন্ত্র। তিনি চাইলে সেদিন আন্দোলন দমিয়ে ক্ষমতায় থাকতে পারতেন। কিন্তু তিনি তা করেননি, কারণ তিনি গণতন্ত্রে বিশ্বাসী। তিনি বলেন- বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর বাংলাদেশের ইতিহাস পাল্টাইয়া ফেলছে। আজকে ইতিহাসে একটামাত্র পাতা আছে, যে ওরা ছাড়া স্বাধীনতাযুদ্ধে আর কেউ যায় নাই। তবে বাকিরা গিয়ে কী করেছে। মূলত এ দেশের খেটে খাওয়া মানুষ, লুঙ্গি পরে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছে। সিলেট জেলা বিএনপি’র আহ্বায়ক কামরুল হুদা জায়গীরদারের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুর মুক্তাদির। জেলা বিএনপি নেতা মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, সিদ্দিকুর রহমান পাপলু ও আবুল কাশেমের পরিচালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তাহসিনা রুশদীর লুনা, ড. এনাম আহমদ. সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সাখাওয়াত হাসান জীবন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক কলিম উদ্দিন মিলন, যুবদলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকু, সিলেটের মেয়র ও কেন্দ্রীয় সদস্য আরিফুল হক চৌধুরী, আবুল কাহের শামীম, মিজানুর রহমান, ইশরাক হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য ওমর ফারুক শাফিন, স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও সিটি কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহ- সভাপতি সাজিদ হাসান। সিলেটের নেতাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপি নেতা আব্দুল মান্নান, সামিয়া বেগম চৌধুরী, মামুনুর রশীদ মামুন, নুরুল হুদা, ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, এমরান হোসেন চৌধুরী, আব্দুল আহাদ খান জামাল, হাসান পাটওয়ারী রিপন, শামীম আহমদ, তারেক কালাম, শহীদ আহমদ চেয়ারম্যান, এডভোকেট মুমিনুল ইসলাম ও আলতাফ হোসেন সুমন প্রমুখ।

Lab Scan
ভাগ