সূচকে মিশ্র প্রবণতা, ১৫শ কোটি টাকা ছাড়ালো লেনদেন

লোকসমাজ ডেস্ক॥ মার্জিন ঋণ নিয়ে নতুন নির্দেশনা আশার পর মঙ্গলবার (১৬ নভেম্বর) দেশের শেয়ারবাজারে মূল্যসূচকের বড় উত্থান হয়। তবে, একদিনের ব্যবধানে বুধবার (১৭ নভেম্বর) আবার কিছুটা নেতিবাচক প্রবণতা দেখা গেছে।
প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) প্রধান মূল্যসূচক বাড়লেও কমেছে অন্য সূচকগুলো। সেইসঙ্গে লেনদেনে অংশ নেওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। তবে, ডিএসইতে লেনদেন বেড়ে ১৫শ কোটি টাকা ছাড়িয়েছে।
সূচকের সঙ্গে সমন্বয় করে নির্ধারণ করা মার্জিন ঋণের নিয়ম বাতিল করে সব ক্ষেত্রে ১ : ০.৮০ হারে মার্জিন ঋণের নতুন রেশিও নির্ধারণ করে সোমবার (১৫ নভেম্বর) নির্দেশনা জারি করে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। এ নির্দেশনার পর মঙ্গলবার শেয়াবাজারে মূল্যসূচকের বড় উত্থান হয়। একদিনে ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ১১৫ পয়েন্ট বেড়ে যায়।
বুধবার লেনদেনের শুরুতেও ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচকের বড় উত্থানের আভাস পাওয়া যায়। বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার কারণে লেনদেনের প্রথম ১০ মিনিটে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৩৬ পয়েন্ট বেড়ে যায়। কিন্তু লেনদেনের শেষপর্যন্ত সূচকের এ বড় উত্থান অব্যাহত থাকেনি।
লেনদেনের প্রথম আধাঘণ্টায় কিছু বড় মূলধনের প্রতিষ্ঠানের দরপতন হলেও ছোট প্রতিষ্ঠানের বেশিরভাগের শেয়ার দাম বাড়ে। তবে, লেনদেনের সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সবধরনের প্রতিষ্ঠানের দরপতন হতে থাকে। ফলে প্রধান মূল্যসূচকের সামান্য উত্থান হলেও, বাকি দু’টি সূচকের পতন হয়েছে।
দিনের লেনদেন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ৪ পয়েন্ট বেড়ে ৭ হাজার ৬০ পয়েন্টে উঠে এসেছে। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৪৮৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর বাছাই করা ভালো কোম্পানি নিয়ে গঠিত ডিএসই-৩০ সূচক ৭ পয়েন্ট কমে ২ হাজার ৬৮৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে।
দিনভার ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া ১৫২ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১৭৭টির। আর ৩৭টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।
বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৫০৭ কোটি ২ লাখ টাকা। আগের দিন লেনদেন হয় ১ হাজার ৪৯১ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। এ হিসেবে লেনদেন বেড়েছে ১৫ কোটি ১৭ লাখ টাকা।
টাকার অংকে ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে আইএফআইসি ব্যাংকের শেয়ার। কোম্পানিটির ১২০ কোটি ৪০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বেক্সিমকো ফার্মার ১১৫ কোটি ৯২ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে। ৬৫ কোটি ৭১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের।
এছাড়া ডিএসইতে লেনদেনের দিক থেকে শীর্ষ দশ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় রয়েছে- ওরিয়ন ফার্মা, এনআরবিসি ব্যাংক, ফরচুন সুজ, জিনেক্স ইনফোসিস, ব্র্যাক ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক এবং কাট্টালী টেক্সটাইল।
অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক সিএএসপিআই বেড়েছে ৩ পয়েন্ট। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৫৫ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। লেনদেনে অংশ নেওয়া ২৮৯টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ১৩৮টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ১১৯টির এবং ৩২টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।