বাগআঁচড়ায় স্কুলছাত্রী ধর্ষণ ঘটনায় মামলা, একজন আটক

বাগআঁচড়া (যশোর) সংবাদদাতা ॥ যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া সোনাতনকাটি গ্রামে ষষ্ঠ শ্রেনীর এক ছাত্রীকে পালাক্রমে ধর্ষণের পর হত্যা চেষ্টার ঘটনায় শার্শা থানায় মামলা হয়েছে। তিন জনকে অভিযুক্ত করে মামলাটি করেন ধর্ষিতার বাবা। পুলিশ এ ঘটনায় সোমবার রাতে সাগর হোসেন (২৮) নামে এক যুবককে আটক করেছে।
ধর্ষিতার বাবা জানান, গত ২৪ জুলাই রাত আটটার দিকে তার কিশোরী মেয়ে প্রতিবেশীর বাসা থেকে নিজ বাড়ি ফিরছিল। পথে সোনাতনকাটি গ্রামের আক্তারুলের ছেলে সাগর হোসেন ও শফিকুল ইসলামের ছেলে সুমন এবং সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার ধানঘুরা গ্রামের রেজাউল সর্দারের ছেলে নাহিদ তাকে ধরে নিয়ে যান। এরপর তারা অন্ধকারে পুকুর পাড়ের জঙ্গলে নিয়ে তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। ধর্ষণ শেষে মেয়েটিকে পুকুরের পানিতে ডুবিয়ে হত্যার চেষ্টা চালানো হয়। এদিকে মেয়েকে না পেয়ে তার বাবা ও আত্মীয় স্বজন খোঁজাখুঁজি শুরু করলে ধর্ষণকারীরা তাকে পানিতে ফেলে পালিয়ে যান। পরে মেয়েটিকে উদ্ধার করা হয়। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ায় গত ২৬ জুলাই প্রভাবশালী একটি মহল টাকার বিনিময়ে মীমাংশার চেষ্টা করে। কিন্তু বাগআঁচড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোহাম্মদ মাহমুদ আল ফরিদ ভুইয়ার হস্তক্ষেপে সে চেষ্টা ব্যর্থ হয়। পুলিশ এ সময় অভিযুক্ত সাগরকে আটক এবং ধর্ষণের শিকার কিশোরীকে তাদের হেফাজতে নেয়।
শার্শা থানা পুলিশের ওসি বদরুল আলম খান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আসামি সাগর জানিয়েছে তারা তিনজন মিলে এই অপকর্ম করেছে। বাকি দুই আসামিকে আটকের চেষ্টা চলছে এবং মেয়েটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতলে পাঠানো হয়েছে।

Lab Scan
ভাগ