বিএনপির খাবার বিতরণের তৃতীয় দিনে মঞ্জু সরকার দরিদ্র মানুষের সাথে ¯্রফে তামাশা করছে

খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেছেন, বর্তমান সরকার কার্যকর অর্থেই একটা অমানবিক সরকার, চলমান কঠোর লকডাউনে দরিদ্র মানুষের জন্য বরাদ্দকৃত সহায়তার টাকার অংকেই বোঝা গেছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে গত ২৭ জুন লকডাউনে দরিদ্র, দুস্থ, অসচ্ছল ও কর্মহীন জনগোষ্ঠীকে মানবিক সহায়তা দিতে ৬৪ জেলার অনুকূলে মাত্র ২৩ কোটি ছয় লাখ ৭৫ হাজার টাকা ও পরবর্তীতে আরো ১১ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। বলা হয়েছে ৩৩৩ নম্বরে ফোন করলে মানবিক সহায়তা পাওয়ার মতো যোগ্য ব্যক্তিদের এই বরাদ্দ থেকে খাদ্য-সহায়তা দেওয়া হবে, যার মধ্যে থাকবে ১০ কেজি চাল, এক কেজি তেল, এক কেজি ডাল, পাঁচ কেজি আলু ও এক কেজি লবণ। মূল্য নির্ধারণ হিসেবে টাকার অংকে যা ১ হাজার টাকার মতো দাঁড়াবে। বরাদ্দকৃত মোট টাকার বিপরীতে সর্বোচ্চ ৩ লাখ ৩০ হাজার মানুষের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেওয়া সম্ভব। যেখানে করোনাকালে দুই কোটির বেশি মানুষ নতুন করে দরিদ্র হয়েছে। এর সঙ্গে যদি আগের সংখ্যা যুক্ত করা হয়, তাহলে কমপক্ষে পাঁচ-ছয় কোটি হবে। তাহলে কঠোরতম এই লকডাউনে সরকার ঘোষিত বরাদ্দকৃত অর্থ একেক জনের ভাগে চার থেকে পাঁচ টাকার বেশি পড়ার কথা নয়। এটা মহামারিকালে জনগণের সাথে ¯্রফে তামাশা ছাড়া আর কিছুই নয়।
গতকাল শনিবার নগরীর ট্যাঙ্ক রোড বড়মসজিদ এলাকায় ও কাস্টমস ঘাট এলাকায় ৩৮০ জন দরিদ্র মানুষের মাঝে রান্না খাবার বিতরণ কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মঞ্জু আরো বলেন, বিএনপি আগে থেকেই বলেছিলো জেলার হাসপাতালগুলোয় পর্যাপ্ত পরিমাণ আইসিইউ বেডের ব্যবস্থা করা হোক, অক্সিজেন সরবারহের ব্যবস্থা করা হোক, ওষুধের ব্যবস্থা করা হোক। কিন্তু সরকার সে প্রস্তাব গ্রহণ করেনি। দেশের জেলাগুলোর অধিকাংশ হাসপাতালে কোনো অক্সিজেন সরবারহের ব্যবস্থা নেই। অথচ দেশের এই চরম দুঃসময়ে সরকারের লিপ সার্ভিস দেয়া মন্ত্রীরা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে আবার জেলে নেয়ার হুমকি দিচ্ছেন। জনগণকে রক্ষা না করে, সারাদিন বিএনপির বিরুদ্ধে কুৎসা রটনা, অসত্য বয়ান আর জেল-জুলুমের হুমকি দিয়ে নিজেদের ব্যর্থতা আড়াল করার হীন প্রচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সেকেন্দার জাফর উল্লাহ খান সাচ্চু, রেহানা ঈসা, ইউসুফ হারুন মজনু, হাসানুর রশিদ মিরাজ, মিজানুর রহমান মিলটন, শরিফুল ইসলাম বাবু, মেজবাহ উদ্দিন মিজু, জাহিদ কামাল টিটো, সিরাজুল ইসলাম লিটন, শামীম আশরাফ, ফিরোজ আহমেদ, তরিকুল ইসলাম, আ. আহাদ, সেলিম বড়মিয়া, মাসুদ রুমী, আব্দুল আহাদ, ফজুলর রহমান, নজরুল ইসলাম নান্না, তুহিন ইসলাম প্রমুখ।-বিজ্ঞপ্তি

Lab Scan
ভাগ