দিল্লিতে টিকার মজুত শেষ, সংক্রমণ হার নামল ২০-এর নিচে

লোকসমাজ ডেস্ক॥ করোনাভাইরাসের সংক্রমণে টালমাটাল ভারত। দেশটির যেসব রাজ্যে সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার ঊর্ধ্বমুখী তার মধ্যে তালিকায় প্রথম দিকে রাজধানী দিল্লি। গত ১৬ এপ্রিলের পর থেকে দিল্লিতে দৈনিক সংক্রমণ হার ছিল ২০ শতাংশের উপরে। তবে সোমবার (১০ মে) সংক্রমণ হার কিছুটা কমেছে। এদিন সংক্রমণ হার ১৯ দশমিক ১০ শতাংশ। তবে শনাক্তের হার কমলেও দিল্লিতে টিকার মজুত তলানিতে ঠেকেছে বলে জানিয়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী। স্বাস্থ্য দফতরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দিল্লিতে গত ১৭ এপ্রিল থেকে দৈনিক সংক্রমণের হার লাগাতার ২০ শতাংশের উপরে ছিল। তবে সোমবার তা কিছুটা হলেও কমেছে। যদিও দিল্লিতে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা এখনও উদ্বেগজনক।
গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ১২ হাজার ৬৫১ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৩ লাখ ৩৬ হাজার ২১৮ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা ৮৫ হাজার ২৫৮ জন। আক্রান্তের পাশাপাশি দৈনিক মৃতের সংখ্যাও ঊর্ধ্বমুখী। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানীতে ৩১৯ জন করোনা রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৯ হাজার ৬৬৩ জনে। স্বাস্থ্য দফতরের বুলেটিন অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১২ লাখ ৩১ হাজার ২৯৭ জন দিল্লিবাসী। এদিকে সোমবার রাজ্যের স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন জানিয়েছেন, দিল্লির বাসিন্দাদের দৈনিক যে হারে টিকা দেয়া হচ্ছে, সেই হিসাব অনুযায়ী মাত্র ১ দিনের ‘কোভ্যাক্সিন’ মজুত আছে। আর কোভিশিল্ড মজুত রয়েছে ৩-৪ দিনের। গত ২৪ ঘণ্টায় দিল্লিতে টিকা নিয়েছেন ১ হাজার ৭৬৪ জন। এরমধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ১ হাজার ১৬০ জন এবং দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৬০৪ জন। এনিয়ে এখন পর্যন্ত রাজ্যে ৩৮ লাখ ৭৭ হাজার মানুষ টিকা নিয়েছেন।