দ্বিতীয় স্ত্রী হত্যায় স্বামী ও প্রথম স্ত্রীর মৃত্যুদণ্ড

মেহেরপুর সংবাদদাতা॥ মেহেরপুরে দ্বিতীয় স্ত্রী জরিনা খাতুনকে হত্যার দায়ে স্বামী সাইদুল ইসলাম ও তার প্রথম স্ত্রী জমেলা খাতুনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। একইসঙ্গে তাদের ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার (৪ ডিসেম্বর) দুপুরে মেহেরপুর অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক রিপতি কুমার বিশ্বাস এ রায় দেন। সাজাপ্রাপ্ত সাইদুল ইসলাম মেহেরপুর সদর উপজেলার ইচাখালী গ্রামের নবীর উদ্দিনের ছেলে এবং জমেলা খাতুন সাইদুল ইসলামের প্রথম স্ত্রী। ফাঁসির দণ্ডাপ্রাপ্ত সাইদুল ইসলাম এবং তার স্ত্রী জমেলা খাতুন, দুই জনই পলাতক রয়েছেন।
মামলার বিবরনে জানা যায়, ২০১০ সালের ৩১ জানুয়ারি শহরের গোরস্থানপাড়ার জরিনা খাতুনকে সদর উপজেলার যাদপুর গ্রামে প্রথম স্ত্রী জমেলা খাতুনের বাড়িতে ডেকে নিয়ে যান স্বামী সাইদুল ইসলাম। ঐ রাত থেকেই নিখোঁজ হন সাইদুলের দ্বিতীয় স্ত্রী জরিনা খাতুন। ৬ ফেব্রুয়ারি বিকেলে গ্রামের মশুরি ক্ষেতে পোঁতা অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে জানা যায় তাকে জবাই করার পর মাটিতে পুঁতে রাখা হয়েছে। ৬ ফেব্রুয়ারি রাতেই তার বোন ফেরদৌসি খাতুন বাদি হয়ে সাইদুল ইসলামসহ অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই বছরের ৬ মে সাইদুল ও তার প্রথম স্ত্রী জমেলা খাতুনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন তৎকালীন থানার এস. আই হাসান ইমাম। এরপর প্রায় দশ বছরে ১৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ ও উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে সোমবার দুপুরে স্বামী ও প্রথম স্ত্রীকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন আদালত। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জনই পলাতক।