মনিরামপুরে শিক্ষক সাত্তার হত্যা মামলার ৫ আসামির আত্মসমর্পণ

স্টাফ রিপোর্টার, মনিরামপুর (যশোর) ॥ যশোরের মনিরামপুরে মাদ্রাসার অবসরপ্রাপ্ত শিক আব্দুস সাত্তার হত্যা মামলার ৫ আসামি অবশেষে আত্মসমর্পণ করেছেন। গতকাল সোমবার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তারা আত্মসমর্পণ করে জামিনের প্রার্থনা করেন। শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন। আত্মসমর্পণ করা আসামিরা হলেন-নিহতের ভাই আব্দুল হামিদ ও তার স্ত্রী নূরবানু, ছেলে আবু সোয়াইব, ছোটভাই রোকনুজ্জামান ও ভগ্নিপতি রেজাউল করিম। উল্লেখ্য, গত ১৮ সেপ্টেম্বর বিকেলে পৈত্রিক জমি ভাগবাটোয়ারা নিয়ে মনিরামপুর উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের বাড়িতে ভাই-বোনদের উপস্থিতিতে বৈঠক শুরু হয়। এ সময় ভাইদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে সেজোভাই আবদুল হামিদ, ছোটভাই স্কুলশিক্ষক রোকনুজ্জামান মিলে মেজোভাই লাউড়ী কামিল মাদ্রাসার অবসরপ্রাপ্ত প্রভাষক আবদুস সাত্তারকে কিলঘুষি মারেন। এ সময় তাদের সাথে যোগ দিয়ে আবদুল হামিদের ছেলে পারভেজ, ইসমাইল এবং সোয়েবও তাকে মারতে থাকেন। এ সময় অন্য ভাইসহ উপস্থিতিরা ঠেকাতে আসলে তাদের সাথেও হাতাহাতি হয়। মারপিটে মেজোভাই আবদুস সাত্তার গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধারের পর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের চিকিৎসক জুয়েল মৃত ঘোষনা করেন। পুলিশ ওই রাতেই নিহতের ভাইপো ইসমাইল পারভেজকে আটক করে। হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের মেয়ে আসমাউল হুসনা সুমি ৬ জনের নাম উল্লেখসহ থানায় মামলা করেন। মামলার প্রধান আসামি আটক পারভেজকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কাজী নাজমুস সাকিব গত ২৭ সেপ্টেম্বর আদালতে সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন জানান। আদালত জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দু’দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

Lab Scan
ভাগ