যশোরে করোনা সচেতনায় সামাজিক কর্মসূচিতেও বাড়ছে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

স্টাফ রিপোর্টার ॥ করোনা ভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে সব ধরনের লোক সমাগম নিষিদ্ধ হলেও যশোরে দলবল নিয়ে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে মাস্ক ও হ্যান্ডবিল বিতরণ করা হচ্ছে। আর যারা মাস্ক বিতরণ করছেন তাদের অনেকের মুখেই থাকছে না মাস্ক। এসব কান্ডজ্ঞানহীন কর্মকান্ডে সচেতন মহল উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ছেন। তবে এসব কর্মসূচি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে জনমাগম এড়িয়ে সবাইকে সচেতন হওয়ার আহবান জানিয়েছেন জেলার সিভিল সার্জন।
স্থানীয়রা জানান, দেশে যখন করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধি পাচ্ছে তখন এ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য সামাজিক নিরাপত্তা গড়ে তুলতে নানা পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। বিশেষ করে সংক্রমণ কোনো ব্যক্তির কাছ থেকে যাতে এ ধরনের রোগ না ছড়ায় সেজন্য লোক সমাগম যাতে না হয় সে বিষয়ে সরকারের পক্ষ থেকেও অধিক গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। কিন্তু যশোরে এ ক্ষেত্রে অনেকটা ব্যতিক্রম। বিশেষ করে করোনা সচেতনতার কর্মসূচি পালন করতে গিয়েও মানা হচ্ছে না এসব বিধি-নিষেধ। বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে করোনা সচেতনতার জন্য মাস্ক, স্যানিটাইজার ও লিফলেট বিতরণের সময়ে লোকসমাগমের ঘটনা প্রতিনিয়ত দেখা যাচ্ছে। মঙ্গলবার সকালে শহরের দড়াটানা এলাকায় দেখা যায়, একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষে হতদরিদ্র ও রিকশা চালকদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হচ্ছে। ১০/১৫ জনের দলের অধিকাংশের মুখেই কোনো মাস্ক নেই। এদের মধ্যে কেউ কেউ আবার রিকশা থামিয়ে চালকের মুখে মাস্ক পরিয়ে দিচ্ছেন। একই অবস্থা অন্যান্য জায়গাতেও। স্থানীয় কয়েকজন জানান, জনসাধারণদের মাঝে মাস্ক বিতরণ এটি খুবই ভালো উদ্যোগ। তবে এ ক্ষেত্রে কতটা স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলা হচ্ছে তা দেখার বিষয়। তারা বলেন, ভালো কাজ করতে গিয়ে যদি খারাপ পরিণতি হয় তাহলে সে কাজ না করাই ভালো। এ বিষয়ে যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহিনের সাথে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মাস্ক বা স্যানিটাইজার বিতরণ এটি খুবই ভালো উদ্যোগ। যারা এ জাতীয় দুর্যোগের সময়ে মানুষের পাশে এসে এ ধরনের কাজ করছেন তারা নি:সন্দেহে প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য। তবে হতাশা ও উদ্বেগের বিষয় হচ্ছে এসব জণসচেতনতামূলক কর্মকান্ড করতে গিয়ে আমরা নিজেদের বা অন্যকে কতটুকু ঝুঁকির মধ্যে ফেলছি। তিনি বলেন, করোনা প্রতিরোধে আমরা সবচেয়ে গুরুত্ব দিচ্ছি যাতে কোথাও মানুষের সমাগম না ঘটে। এজন্য এ সব কমসূচি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে সবাইকে এদিক বিবেচনা করে চলা। তাই মাস্ক-স্যানিটাইজার বা লিফলেট বিতরণের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সব নিয়ম মেনে চলার জন্য সবাইকে সচেতন থাকার আহবান জানান তিনি।