৪ টাকায় লেবু কিনে ১০ টাকায় বিক্রি

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ খুচরা বাজারের পাশাপাশি এবার মধ্যরাতে সরাসরি আড়তে অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার (৬ এপ্রিল) রাজধানীর কারওয়ান বাজারের বেশকিছু আড়তে অভিযান চালানো হয়। এসময় অনিয়ম পাওয়ায় তিনটি আড়তকে জরিমানা করা হয় ১৩ হাজার টাকা।
ভোক্তা অধিদপ্তর জানিয়েছে, রমজানে চাহিদাসম্পন্ন পণ্যের লাগামহীন দাম নিয়ন্ত্রণে এ অভিযান চলবে নিয়মিত। এরপর রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, মিরপুরের আড়তসহ জেলা পর্যায়ের আড়তগুলোতে অভিযান চালানো হবে।
এদিকে বুধবারের অভিযানে দেখা যায়, কৃষকের থেকে কম দামে কিনলেও কয়েকটি হাতবদল হয়ে পণ্যের দাম বেড়ে যাচ্ছে আড়তে। এবার রমজানে লেবুর হালি ৪০-৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এ অবস্থায় প্রথমে অভিযান চালানো হয় লেবু বহনকারী ট্রাকে।
ট্রাকচালকরা ভোক্তা অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের জানান, কৃষকের কাছ থেকে প্রতি বস্তা লেবু আড়াই থেকে তিন হাজার টাকায় কেনা হয়। প্রতি বস্তায় লেবু থাকে ৭০০-৮০০ পিস। সব খরচ মিলিয়ে কৃষকের কাছ থেকে প্রতি পিস লেবু কেনায় খরচ হয় সাড়ে তিন থেকে চার টাকা। এরপর ভোক্তা পর্যায়ে এই লেবুর দাম ওঠে ১০-১৫ টাকায়।
৪ টাকায় লেবু কিনে ১০ টাকায় বিক্রি
এছাড়া রাত সাড়ে ১২টায় বেগুনের আড়তে দেখা যায়, পাইকাররা প্রতি কেজি বেগুন ৫০-৬০ টাকায় বিক্রি করছেন। এরপর রাত দেড়টায় অভিযান চলে তরমুজের আড়তে। সেখানে দেখা গেছে, পাইকাররা কৃষকের কাছ থেকে ৯-১০ কেজি ওজনের ১০০ পিস তরমুজ কিনছেন ১৮-২০ হাজার টাকায়। সেই ১০০ পিস তরমুজ তারা খুচরা বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করছেন ৩৫ হাজার টাকায়। ফলে খুচরা পর্যায়ে প্রতি পিস তরমুজের দাম পড়ছে প্রায় ৪০০-৪৫০ টাকা।
অতিরিক্ত দাম নেওয়ার কারণে এসময় দুই ব্যবসায়ীকে পাঁচ হাজার করে মোট ১০ হাজার টাকা এবং একজনকে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
এই অভিযান চলে ভোক্তা অধিদপ্তরের পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের নেতৃত্বে। এসময় উপস্থিত ছিলেন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক বিকাশ চন্দ্র দাশ ও সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মণ্ডল।

Lab Scan