১০ টাকার জন্য শিশুকে জবাই করে হত্যা

0

রিফাত রহমান,চুয়াডাঙ্গা॥ চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের কানাইডাঙ্গা গ্রামে দ্বিতীয় শ্রেনীর এক ছাত্রকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে হত্যা করা হয়েছ্।ে হত্যাকান্ডের শিকার ইয়ামিন (১০) বৃত্তিপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালের ছাত্র এবং কানাইডাঙ্গা বৃত্তিপাড়ার সেলিম উদ্দিনের ছোট ছেলে। শনিবার বেলা ৩ টার দিকে ওই এলাকার একটি কবরস্থানের ভেতর থেকে লাশ উদ্ধার এলাকার লোকজন।
হত্যাকান্ডের শিকার শিশু ইয়ামিনের মা রিতা জানান, এদিন দুপুরে তাদের বাড়ির পাশে আম বাগানে সে তার বন্ধুদের সঙ্গে খেলা করছিলো। খেলার সময় একই গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আসাদুজ্জামানের ছেলে জাহিদ (১৬), ইয়ামিনকে ৩০ টাকা দিয়ে ২০ টাকার মুড়ি চানাচুর ও ১০ টাকার সিগারেট কিনে আনতে বলে। সে ২০ টাকার মুড়ি চানাচুর আনলেও ১০ টাকা দিয়ে সে সিগারেট আনেনি। সেই টাকা সে অন্য কিছু কিনে খেয়ে ফেলে। জাহিদ তার কাছ থেকে ১০ টাকা না পেয়ে তাকে তার হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলায় আঘাত করে। এরপর সেখানেই সে মারা যায়। তারপর কবরস্থানের ভিতর তার লাশ ফেলে হত্যাকারী পালিয়ে যায়। এসময় ইয়ামিনের খেলার সাথীরা বাড়িতে এসে বিষয়টি জানায়। পরে পরিবারের লোকজন মরদেহ উদ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে। দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ফেরদৌস ওয়াহিদ জানান, খবর পেয়ে নিহত ইয়ামিনের লাশ শনিবার বিকাল ৫টার পর তাদের বাড়ি থেকে পুলিশ উদ্ধার করে। লাশের ময়না তদন্তের জন্য চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। রবিবার লাশের ময়না তদন্ত করা হবে। এ হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিকে আটকের চেষ্টা চলছে। তবে এ দিন সন্ধ্যা সোয়া ৭টা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি।

Lab Scan