স্ত্রী বললেন, ‘অবৈধ সুযোগ নিয়ে পুলিশ তাদের ফাঁসাতে চাইছে’  #উপজেলা সভাপতি বললেন, সে অন্যায়কারী, আল্লাহ তাকে শাস্তি দিয়েছে

0

স্টাফ রিপোর্টার॥ ঢাকায় অস্ত্র গুলিসহ আটক যশোরের শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকুল হোসাইন সম্পর্কে সভাপতি আব্দুর রহিম সরদার বলেছেন, সে (আকুল) অন্যায়কারী, চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী, অস্ত্র ব্যবসায়ী, আল্লাহরব্বুলআলামিন তাকে সঠিক শাস্তি দিয়েছে। দলের সাধারণ সম্পাদককে আটকের বিষয়ে আব্দুর রহিমের অভিমত জানতে চাইলে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে মোবাইল ফোনে উপর্যুক্ত কথা বলেন তিনি। অপরদিকে আকুলের স্ত্রী একই দিন সন্ধ্যায় প্রেসক্লাব যশোরে এক সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেছেন, কোন ‘স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর কাছ থেকে অবৈধ সুযোগ নিয়ে পুলিশ তাদের ফাঁসাতে চাইছে’।


উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুর রহিম বলেন, ২০১২ সালের ৩ মে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আরিফুল ইসলাম রিয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুলসহ জেলা থেকে সাত নেতা শার্শায় এসে তাকে ( রহিমকে) সভাপতি ও ইকবাল হোসেন রাসেলকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষণা করেন। কিন্তু এরপর যশোরে ফিরে গিয়ে আনোয়ার হোসেন বিপুল ফের কমিটির ঘোষণা দেন। ওই কমিটিতে তিনি সাধারণ সম্পাদক পদে ইকবাল হোসেন রাসেলকে বাদ দিয়ে আকুল হোসাইনকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেন। কিন্তু আকুলকে ওই পদে শার্শা উপজেলা শাখা, ৯টি ইউনিয়ন শাখা ও তিনটি কলেজ শাখার কেউ এখনও সেক্রেটারি হিসেবে মানেনি।


অপরদিকে আটক আকুল হোসাইনের স্ত্রী নাদিরা আক্তার লাইজু এ দিন সন্ধ্যায় প্রেসক্লাব যশোরে এক সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেছেন, “আমরা চ্যালেঞ্জ করে বলছি, আকুল তার ব্যবসায়িক বন্ধুদের নিয়ে খুলনায় যাচ্ছিলেন। এসময় তাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কোন স্বার্থান্বেষী গোষ্ঠীর কাছ থেকে অবৈধ সুযোগ নিয়ে পুলিশ তাদের ফাঁসাতে চাইছে। আমরা জানতে পেরেছি ডিবি পুলিশের গুলশান জোন ডিসি মশিউর রহমান ও এডিসি কামরুজ্জামান তাকে খুলনা থেকে তুলে ঢাকায় নিয়ে যান। পরে অস্ত্রসহ আটকের মিথ্যা নাটক সাজানো হচ্ছে।” লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও বলেন,“ এজন্য আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানাচ্ছি,আকুলসহ তার সঙ্গীদের এবং যে সব পুলিশ কর্মকর্তা তাদের আটক করেছেন বা তাদের ডিজিটাল প্রযুক্তির মাধ্যমে ওই সময় কোথায় ছিলেন তা শনাক্ত করার দাবি করছি।” আরও বলেন,“আকুল হোসেন ব্যবসায়ের পাশাপাশি রাজনীতির সাথে জড়িত। ১/১১ অবৈধ সরকারের সময় জননেত্রী আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আটক করার প্রতিবাদে যশোরে প্রথম যে ২৪ জন মিছিল করেছিলেন তিনি তাদের এক জন। এছাড়া তিনি জেলা ছাত্রলীগেরও সহ সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন। আমরা তার ও তার ব্যবসায়িক বন্ধুদের আটকের বিষয়টির প্রকৃত রহস্য উন্মোচনের জন্য সংশ্লিষ্টদের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।” সংবাদ সম্মেলনে আকুলের ভায়রাভাই ওহিদ হোসেন, শ্যালিকা ফারহানা ইয়াসমিন ও ভাইপো সিফাত হোসেন সজল উপস্থিত ছিলেন।
অস্ত্র চোরাকারবারির অভিযোগে যশোরের শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকুল হোসাইনসহ ৫ জনকে ঢাকায় গ্রেফতার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগের তিনটি দল বুধবার রাতে মিরপুর, দারুস সালাম ও গাবতলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করে। অভিযানে ৮টি বিদেশি পিস্তল, ১৬টি ম্যাগজিন ও ৮টি গুলি ও একটি প্রাইভেটকার উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ।

Lab Scan