স্ত্রীর বিরুদ্ধে যৌতুক না পেয়ে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে মামলা

0

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ১০ লাখ টাকা যৌতুক না পেয়ে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে স্ত্রীসহ ৩ জনকে আসামি করে সোমবার আদালতে মামলা করেছেন সোহাগ হোসেন নামে এক ব্যক্তি। সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. মঞ্জুরুল ইসলাম অভিযোগ আমলে নিয়ে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের জন্য বেনাপোল পোর্ট থানার ওসিকে আদেশ দিয়েছেন। আসামিরা হলেন-শার্শা উপজেলার নারানপুর গ্রামের বাসিন্দা শাহাবুদ্দিন এবং তার মেয়ে শারমিন সুলতানা এলাচী ও ছেলে আল আমিন ওরফে ইমন।
মামলার বিবরণে জানা গেছে, শার্শা উপজেলার নামাজগ্রামের আব্দুল জলিল মোল্লার ছেলে সোহাগ হোসেন বেনাপোলে ব্যবসা করেন। ৭ বছর আগে তিনি পারিবারিকভাবে এলাচীকে বিয়ে করেন। দাম্পত্য জীবনে তাদের ৫ বছর বয়সী একটি পুত্রসন্তান রয়েছে। ২০১৬ সালে সোহাগ হোসেন তার নিজ নামীয় ৪ শতক জমি স্ত্রী এলাচীর নামে রেজিস্ট্রি করে দেন। এ জমিতে দোকানঘর ও বাড়ি রয়েছে। বাড়িতে সোহাগ হোসেন এবং তার স্ত্রী আসামি এলাচী, শ্বশুর শাহাবুদ্দিন ও শ্যালক ইমন বসবাস করেন। এছাড়া সোহাগ হোসেন তার অপর একটি জমিতে মুরগি ও গরুর খামার করে সেটি শ্বশুর ও শ্যালককে দেখাশুনার দায়িত্ব দেন। কিন্তু এরই মধ্যে স্ত্রী এলাচী যৌতুক বাবদ ব্যাংকে হিসাব খুলে ১০ লাখ টাকা জমা দিতে বলেন সোহাগ হোসেনকে। এলাচী তার স্বামীকে জানান এই টাকা দিয়ে তার পিতা ও ভাই অন্য ব্যবসা করবেন। তবে সোহাগ হোসেন তাকে যৌতুকের ১০ লাখ টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এ ঘটনায় ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১৫ জানুয়ারি উল্লিখিত আসামিরা সোহাগ হোসেনকে মারধর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন।

Lab Scan