সেনাবাহিনীতে জাল নিয়োগপত্র দিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে চব্বিশ লাখ টাকা

0

আসিফ কাজল, ঝিনাইদহ॥ সেনাবাহিনীতে চাকরী দেয়ার নামে প্রতারণা করে হাতিয়ে নেয়া হয়েছে চব্বিশ লাখ টাকা। এই টাকা ফেরৎ ও প্রতারক, ঠকবাজদের বিরুদ্ধে ঝিনাইদহের একটি আদালতে মামলা করেছেন চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলার হাসাদাহ মাঝপাড়া গ্রামের মামুন হাসান। এছাড়া ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার উত্তর নারায়নপুর গ্রামের জমির আলীর ছেলে আরিফুল এবং সাইদুর রহমানের ছেলে সোহাগ হোসেনও আদালতে অভিযোগ করেছেন। মামুন হাসান আদালতে দায়ের করা মামলায় উল্লেখ করেছেন, চাকরী দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে যশোরের মনিরামপুর উপজেলার নেহালপুর গ্রামের আব্দুস সালামের ছেলে ইবনে ফয়সাল রানা (৪০) ও একই উপজেলার কাজোড়া গ্রামের মজিদ মাষ্টারের ছেলে নাজমুল হক টিটু (৪১) তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন সময় ২৪ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। রানা ও টিটু সেনা বাহিনীর স্টেশন হেড কোয়ার্টার সিভিল ‘মেস ওয়েটার’ এবং মালী পদে জাল নিয়োগপত্র দেখিয়ে এই টাকা হাতিয়ে নেন। চক্রটি এসএসসি পাশের মূল সনদ নিয়েও তা আর ফেরৎ দেয়নি। টাকা ও সনদপত্র চাইলে জীবন নাশের হুমকী দিচ্ছেন। মামুন হাসান জানান, এই প্রতারক ও জালিয়াত চক্রটি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে প্রভাব বিস্তার করে অসংখ্য বেকার যুবককে পথে বসিয়েছে। তাদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা ও পরীক্ষার মুল সনদপত্র নিয়ে আর ফেরৎ দিচ্ছে না। ফলে কোন প্রতিকার না পেয়ে তারা আদালতের দারস্থ হয়েছেন। এ ঘটনায় আরিফুল ইসলাম বাদী হয়ে কোটচাঁদপুরের আমলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে, মামুন হাসান ও সাইদুল ইসলাম চুয়াডাঙ্গার জীবননগর আমলী আদালতে মামলা করেছেন। এ বিষয়ে তারা ঝিনাইদহ র‌্যাব ক্যাম্পে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে রোববার জানান।

Lab Scan