সাতক্ষীরার হত্যা-গুম বা পাচারের অভিযোগে দায়ের করা মামলার ভিকটিম উদ্ধার

0

শেখ মাসুদ হোসেন, সাতক্ষীরা॥ সাতক্ষীরার চাঞ্চল্যকর হত্যা-গুম বা পাচারের অভিযোগে দায়ের করা মামলার ভিকটিম শারমিন সুলতানাকে উদ্ধার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মঙ্গলবার ভোরে নারায়নগঞ্জ থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। এল ফলে দীর্ঘ এক বছর আট মাস পর জট খুলল সাতক্ষীরার চাঞ্চল্যকর এ ঘটনার।
এদিকে, এ ঘটনায় দুপুর ২ টায় সাতক্ষীরা পিবিআই কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর মো. শাফিন মাহমুদ। তিনি জানান, এক বছর আট মাস আগে হঠাৎ নিখোঁজ হন সাতক্ষীরা সদরের পশ্চিম পলাশপোল এলাকার আব্দুল হামিদ ওরফে হামিজউদ্দীনের মেয়ে শারমিন সুলতানা (২৮)। এ ঘটনায় ২০২০ সালের ২৩ আগষ্ট সাতক্ষীরা নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনাল আদালতে শারমিন সুলতানাকে হত্যা বা গুম অথবা পাচার করা হয়েছে মর্মে শ^শুর বাড়ির লোকজনদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন শারমিনের বাবা। আদালত মামলাটি পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দেন।


পিবিআই কর্মকর্তা মীর মো. শাফিন মাহমুদ আরও জানান, মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হাবিবুর রহমান ভিকটিমকে উদ্ধারের নিমিত্তে আদালতে ঘটনাটি থানায় নিয়মিত মামলা রুজু করার জন্য আবেদন করেন। পরবর্তীতে আদালত অভিযোগটি সদর থানায় নথিভুক্ত করতে নির্দেশনা দেন। মামলা নং ৫০। তারিখ ০৮/০৬/২১ ইং। মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর থানার তৎকালীন এসআই অর্পনা বিশ^াস ঘটনার রহস্য উৎঘাটনে ব্যর্থ হলে পুলিশ হেড কোয়ার্টার্স পিবিআই সাতক্ষীরাকে মামলাটি তদন্তের নির্দেশনা দেন। অবশেষে তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় ভিকটিম শারমিন সুলতানাকে নারায়নগঞ্জ জেলার রুপগঞ্জ এলাকা থেকে ভোরে উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় তার সঙ্গে কাউকে পাওয়া যায়নি।তিনি আরো জানান, জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ভিকটিমকে আদালতে সোপর্দ করা হবে। এ ব্যাপারে শারমিন সুলতানার স্বামী শহরের ইটাগাছা এলাকার হাবিবুর রহমান জানান, সাড়ে তিন বছরের ছেলেকে রেখে হঠাৎ বাড়ি থেকে কাউকে কিছু না জানিয়ে উধাও হয়ে যায় আমার স্ত্রী। এরপর আমার শ^শুর আমিসহ আমার পরিবারের ৫ জনের বিরুদ্ধে হত্যা, গুম, অপহরণ ও পাচারের অভিযোগ তুলে মামলা করেন। আমি প্রথম থেকেই বলে আসছিলাম এ ব্যাপারে আমরা কিছুই জানিনা। অবশেষে আমার কথার সত্যতা পেয়েছে পিবিআই। তিনি আরো জানান, আমি একেবারেই নিঃস্ব হয়ে গেছি। ইতিমধ্যে আমার ১০ লাখ টাকা খরচ হয়ে গেছে। পরিবারের পাঁচজন মিথ্যা মামলা নিয়ে এতদিন চলছি। এখন সত্য উৎঘাটন হয়েছে। তিনি এ সময় এই হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা দেওয়ার জন্য মামলার বাদী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের শাস্তির দাবি জানান।

Lab Scan