সম্মিলনী ইনস্টিটিউশন দিবস উদযাপন

0

 

স্টাফ রিপোর্টার॥ আনন্দ শোভাযাত্রা, স্মৃতিচারণ মুলক আলোচনা, প্রাক্তন ও বর্তমান কৃতি শিক্ষার্থীর সংবর্ধনা এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে পালিত হয়েছে ‘সম্মিলনী ইনস্টিটিউশন দিবস’। দিবস টি উপলক্ষে রবিবার বিদ্যালয় প্রাঙ্গন ছিল উৎসবমুখর। প্রাক্তন শিক্ষর্থীরা প্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের আঙ্গিনায় জড়ো হয়ে সেদিনের সহপাঠিদের সাথে মেতে ওঠেন আনন্দ উন্মাদনায়। একে অপরকে জড়িয়ে প্রকাশ করেন প্রাণের উচ্ছ্বাস।
স্মৃতির পাতা উল্টাতে মেতে ওঠেন সেই কৈশোর- শৈশবের দিনে। সম্মিলনী ইনস্টিটিউশন প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের এই আয়োজনে প্রাক্তন সাড়ে ৩শ শিক্ষার্থীসহ বর্তমানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেয় দিবসের উৎসবে।  ১৩৩ বছর আগে ১৮৮৯ সালের কোন এক শুভক্ষণে প্রতিষ্ঠিত হয় এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি। ২০১৬ সালে প্রতিষ্ঠার ১২৫ বছর পূর্তি উৎসব পালন শেষে এ দিনটিকে ‘সম্মিলনী ইনস্টিটিউশন দিবস’ বা সম্মিলনী ডে ঘোষণা করে ‘সম্মিলনী ইনস্টিটিউশন প্রাক্তন ছাত্র পরিষদ’। আর সেই থেকে প্রতিবছর এই আয়োজন করা হয়। সকালে ফেস্টুন উড়িয়ে আনন্দ শোভাযাত্রা উদ্বোধন করেন অবসরপ্রাপ্ত এবং প্রবীণ শিক্ষক তারাপদ দাস ও সম্মিলনী ইনস্টিটিউশনের এসএসসি ১৯৫৪ ব্যাচ এর ধূর্জ্জটি প্রসাদ দাস।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রাক্তন ছাত্র ও যশোর পৌরসভার মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা হায়দার গনি খাঁন পলাশ, বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম মিলন, সম্মিলনী ইনস্টিটিউশন প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম, প্রধান শিক্ষক মিহির কান্তি দাস প্রমুখ।  বাদ্যবাজিয়ে, নানা রং এর ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে প্রাক্তন আর বর্তমানের বিপুল সংখ্যক শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণে আনন্দ শোভাযাত্রাটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়।
বিকেল গড়াতেই শুরু হয় দ্বিতীয় পর্বের অনুষ্ঠান। শুরুতেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাতা রায় বাহাদুর যদুনাথ মজুমদারের প্রতিকৃতিতে অর্পণ করা হয় পুষ্পার্ঘ্য। তার পরে বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থী, শিক্ষক যারা গত হয়েছে তাদের স্মরণে পালন করা হয় ১ মিনিট নিরাবতা।  পরে প্রাক্তন তিন কৃতি শিক্ষার্থী ড. মো. মুস্তাফিজুর রহমান (এসএসসি ১৯৬৪ ব্যাচ), অধ্যাপক ডা. আব্দুর রশিদ (এসএসসি ১৯৬৭ ব্যাচ) ও মেজর জেনারেল (অব) আবু ইসহক ইব্রাহীম (এসএসসি ১৯৭০ ব্যাচ)সহ ২০২২ মাধ্যমিক পরীক্ষায় জিপিএ -৫ প্রাপ্ত এবং বিদ্যালয়টির অন্য শ্রেণির বার্ষিক পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকারী ছাত্রদের সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। এছাড়াও সকল শিক্ষকদের জানানো হয় ফুলেল শুভেচ্ছা। এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সম্মিলনী ইনস্টিটিউশন প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের আহবায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা রবিউল আলম। বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, সংবর্ধিত ড. মো. মুস্তাফিজুর রহমান, অধ্যাপক ডা. আব্দুর রশিদ, মেজর জেনারেল (অব) আবু ইসহক ইব্রাহীম ও প্রধান শিক্ষক মিহির কান্তি সরকার। অনুষ্ঠানটি সঞ্চলনা করেন সাংবাদিক ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল।শেষে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। জেলার বিভিন্ন সংগঠনের শিল্পীরা এতে অংশ নেন।

 

 

Lab Scan