শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী দিনেশ গুনাবর্ধনে

0

লোকসমাজ ডেস্ক॥ শ্রীলঙ্কার নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন দিনেশ গুনাবর্ধনে। শুক্রবার (২২ জুলাই) শ্রীলঙ্কার রাজনীতির দিকপাল ৭৩ বছর বয়সী দিনেশ প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিলেন।
দিনেশ গুণাবর্ধনেকে দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজপাক্ষে তথা প্রভাবশালী রাজাপাক্ষে পরিবারের মিত্র বলেই অনেক সংবাদমাধ্যম দাবি করেছে।
দিনেশ গুনাবর্ধনে এর আগে পররাষ্ট্র ও শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। পরে তিনি রাজাপাক্ষেদের আমলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।
যখন শ্রীলঙ্কার নিরাপত্তাবাহিনী বিক্ষোভাকারীদের ওপর দমন অভিযান চালাচ্ছিল তখনই নতুন প্রধানমন্ত্রী শপথ গ্রহণ করলেন। গত রাত থেকে কলম্বোর সরকারি একটি মাঠ থেকে বিক্ষোভকারীদের ক্যাম্পে অভিযান চালায় নিরাপত্তাবাহিনীর সদস্যরা।
দিনেশ সামরিক কর্মকর্তা ও আইনপ্রণেতায় পরিপূর্ণ একটি কক্ষে প্রেসিডেন্ট বিক্রমাসিংহের উপস্থিতিতে শপথ গ্রহণ করেন। বাকি সদস্যরাও শুক্রবারে শপথ গ্রহণ করবেন।
দিনেশ গোতাবায়া রাজাপাক্ষের রাজনৈতিক দল শ্রীলঙ্কা পোদুজানা পেরামুনার (এসএলপিপি) নেতা। বৃহস্পতিবার বিক্রমাসিংহে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর পদ খালি হয়। এরপরই রনিল বিক্রমাসিংহের স্কুলজীবনের সহপাঠী দিনেশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন।
১৯৪৯ সালে জন্ম নেওয়া দিনেশ গুনাবর্ধনে ট্রটস্কিপন্থি জাতীয়তাবাদী মহাজনা একসাথ পেরামুনার (ক্ষমতাসীন এসএলপিপির অংশ) নেতা হিসেবে দায়িত্বও পালন করেন। তিনি ১৯৭৯ সালে তার বাবা ফিলিপ গুনাবর্ধনের পর নেদারল্যান্ড থেকে উচ্চতর পড়াশুনা শেষ করে দলের হাল ধরেন।
১৯৪৮ সালে ব্রিটেনের কাছ থেকে স্বাধীনতা লাভের পর এবারই সবচেয়ে ভয়াবহ অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে শ্রীলঙ্কা। করোনা মহামারি, জাতীয় অর্থনীতি পরিচালনায় সরকারের অদক্ষতা, বিশ্বজুড়ে জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি এবং রাষ্ট্রীয় কোষাগারে বৈদেশিক মুদ্রার মজুদ তলানিতে নেমে যাওয়ায় শ্রীলঙ্কায় বিপর্যয়কর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।
জ্বালানি, খাবার এবং ওষুধের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রীর আমদানি মূল্য পরিশোধ করতে পারছে না শ্রীলঙ্কা। ডিজেলের সরবরাহ অনিয়মিত হয়ে পড়ায় প্রয়োজনীয় বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে পারছে না শ্রীলঙ্কার বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রগুলো। ফলে গত কয়েক মাস ধরে সেখানে দিনের বেশিরভাগ সময়ই বিদ্যুৎ থাকছে না।
নজিরবিহীন এই সংকটের জন্য রাজাপাক্ষে পরিবারসহ দেশটির ক্ষমতাসীন সরকারকে দায়ী করে শ্রীলঙ্কায় গণআন্দোলন প্রকট আকার ধারণ করে। আন্দোলনের কারণে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে আগেই পদত্যাগ করেছিলেন মাহিন্দা রাজাপাক্ষে। এমনকি রাজাপাক্ষে পরিবারের অন্য সদস্যরাও সরকার থেকে সরে এসেছিলেন।
বাকি ছিলেন কেবল দেশটির প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপাক্ষে। গত সপ্তাহের বুধবার তার পদত্যাগের কথা থাকলেও দিনের আলো ফোটার আগেই সামরিক বিমানে করে দেশ ছেড়ে পালান তিনি। পরে ই-মেইলের মাধ্যমে পদত্যাগপত্র পাঠিয়ে তিনিও আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্রপ্রধানের পদ ছাড়েন।
এরপর গত ১৫ জুলাই শ্রীলঙ্কার ভারপ্রাপ্ত প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেন রনিল বিক্রমাসিংহে। গত ২০ জুলাই অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও জয়ী হন তিনি। আর আজ নতুন প্রধানমন্ত্রী পেল শ্রীলঙ্কা।

Lab Scan