শ্যামনগরের টেংরাখালীতে জোড়া খুনের প্রধান আসামি আব্দুল হামিদ লাল্টুসহ গ্রেফতার ২

0

 

 

শ্যামনগর (সাতক্ষীরা) সংবাদদাতা॥ সাতক্ষীরা জেলার শ্যামনগর উপজেলার টেংরাখালী গ্রামে ওয়ার্ড আওযামীলীগ কার্যালয়ে হামলা করে ২জনকে খুন ও আরো অন্তত ১৬/১৭ জনকে আহতের ঘটনার মূল নায়ক আব্দুল হামিদ লাল্টু (৫২) ও বাবলু গাজী (৪২) কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। গত ১৮ জুলাই র‌্যাব-৬‘র একটি আভিযানিক দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে যশোর জেলার মনিরামপুর থানা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করে।
জানতে পারে যে, উক্ত চাঞ্চল্যকর জোড়াখুন মামলার আসামীরা য় অবস্থান করছে। প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে আভিযানিক দলটি রাত সাড়ে নয়টার দিকে প্রধান আসামি আব্দুল হামিদ লাল্টু (৫২) ও বাবলু গাজী (৪২) কে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামিদের শ্যামনগর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে৷ থানা পুলিশ হত্যা মামলায় আসামিদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত ৮ জুলাই বিকেলে ৮ নম্বর ওয়ার্ডে আওয়ামীলীগের মিটিং চলাকালীন সময়ে লাল্টু বাহিনীর প্রধান আব্দুল হামিদ লাল্টু ও তার তার প্রধান সহযোগী আজগার আলী বুলুর নেতৃত্বে এক দেড়শ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল রামদা, চাইনিজ কুডাল, লোহার রড, গাছি দা, লাঠি, হকিস্টিক, জিআই পাইপ ইত্যাদি দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে হামলা চালায়৷ এ সময়ে হামলাকারীরা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে থাকা আসবাবপত্র, অফিসের সামনে থাকা মোটর সাইকেল ও কার্যালয়ের ভিতর থাকা জিনিস পত্র ভাঙচুর করে ৷
এ ঘটনায় স্থানীয়রা ১৮-২০ জন আহতদের উদ্ধার শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সে সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক আহত আমির হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন৷ গুরুতর আহত কাদের শেখকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মৃত্যু হয়।
এঘটনায় আব্দুল বারী বাদী হয়ে শ্যামনগর থানায় ৭৩ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন ৷

Lab Scan